,

জননেতা আব্দুল মান্নান, ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা এবং সেই  তৃপ্তির হাসি

মাওলানা মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম, কাতার:  ১৯৮৬ সালের মাঝামাঝি সময়। আমার রক্ত কণিকার কারেন্ট তখন চলে সর্বোচ্চ গতিতে। কারণ তখন আমি ইসলামী ছাত্রশিবিরের একজন সক্রিয় কর্মী। সুজাউল মাদ্রাসা থেকে চান্দগ্রাম মাদ্রাসা হয়ে ভর্তি হয়েছি গাংকুল মাদ্রাসায়। শিবিরের সাথী শপথ নেয়ার জন্য দিওয়ানা হালত।
শিবিরের সাথী হওয়ার জন্য ২টা শর্ত আমাকে বড়ই বিব্রতকর অবস্থায় ফেলেছে। সংগঠনে সময় দেয়ার কাজ, সংগঠনের কিছু বই নোট করা আর কিছু কুরআন হাদীস মুখস্ত করার কাজটা অনেক আগেই আমি সেরে রেখেছি। কিন্ত বিব্রতকর ২টি শর্তের বেড়াজালে বন্দি হয়ে আমি সাথী হতে পারছিনা। শর্তগুলো হলোঃ
১. একাধারে কমপক্ষে ৩ মাস নামায কাযা বন্ধ থাকতে হবে।
২. সাথীদের জন্য নির্ধারিত অধ্যয়নের সিলেবাস পড়ে শেষ করতে হবে।
প্রথম শর্ত ৩মাস নামায কাযা বন্ধ থাকা। এই শর্তটা পুরণ করতে করতে ২মাস ১৫ দিনের মাথায় ব্রেক ফেল করেছে। আবার শুরু করেছি। ৩মাসের ভিতরে অন্য প্রস্তুতিটা সেরে নিতে পারলেই হলো।
দ্বিতীয় শর্ত সিলেবাস। সিলেবাসের সকল বই পড়া শেষ করেছি। মাত্র ০১টি বই ছাড়া। বইটির নাম “ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা”। লিখেছেনঃ ড. আব্দুল করিম জায়দান। বাজারে সে বই নাই। সংগঠনের লাইব্রেরীতেও এই বই নাই।
শ্রদ্ধাভাজন ডা. হিফজুর রহামন বললেন, মান্নান ভাইয়ের কাছে পেতে পারেন। সেই সুবাদে একদিন হাজির হলাম জননেতা আব্দুল মান্নান ভাইয়ের বাড়ীতে। বড়লেখার শহরের পাদদেশ মুড়িরগুল এলাকাতে উনার বাড়ী।
জনাব আব্দুল মান্নান ভাইয়ের বাড়ীতে পৌছে আমার চোঁখ ছানাবড়া। যে দিকে তাকাই, শুধু বই বই আর বই। বাঁশবেতের বেড়া দিয়ে তৈরী ঘরে আমাকে বসতে দেয়া হলো, উপযুক্ত আপ্যায়নও করানো হলো। আমাকে সীমাহীন সমাদর করা হলো। কিন্তু সমস্যা হলো, আব্দুল মান্নান ভাইয়ের বিশাল বই ভান্ডার সংরক্ষণের জন্য উপযুক্ত আলমিরা নাই। একজন প্রাইমারী স্কুল মাষ্টার যেখানে পরিবার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন, সেখানে নান্দনিক আলমিরাতে বই সাজিয়ে রাখবেন, সেই সুযোগ আর সামর্থ কোথায়?
আমার বই খোঁজা শুরু হলো। সেই সুযোগে জনাব আব্দুল মান্নান ভাইয়ের বই গুলোও একটু গুঁছিয়ে নিচ্ছি। দেখলাম, একই বইয়ের যতটি সংস্করণ বা মুদ্রণ বের হয়েছে, জনাব আব্দুল মান্নান তার প্রতিটিই কমপক্ষে ১কপি ক্রয় করেছেন। তিনি যেখানেই যেতেন, কিছু বই কিনতেন। আমার এখনো মনে পড়ে নামায রোযার হাকিকত মোট ১৪ কপি বই পেয়েছিলাম তার ব্যক্তিগত লাইব্রেরীতে। কিন্তু আমার কাংখিত সেই “ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা” নামক বইটি পাচ্ছিনা।
অনেক চেষ্টা, পরিশ্রমের মধ্যে চলে গেলো কমপক্ষে ৩ঘন্টা। তিনিও ইতিমধ্যে আমাকে সহযোগিতা করেছেন অনেক। কিন্তু বইটি পাওয়া গেলো না। এর মাঝে আপ্যায়ন শেষ হলো, জনাব আব্দুল মান্নান আমার সম্পর্কে অনেক কিছু জেনে নিলেন। তিনির সম্পর্কে আমার কিছুই জানা হলো না। কারণ তাকে আমি কোন প্রশ্ন করবো, এমন বয়স, সাহস, যোগ্যতা কিছুই আমার ছিলনা। জামায়াতের আন্দোলনে কিংবদন্তী তূল্য মানুষটা তখন আমার কাছে এবং আমার তুলনায় ছিলেন অনেক অনেক উঁচুতে থাকার এক ব্যক্তিত্ব।
হতাশ মন নিয়ে যখন উনার বাসা থেকে বিদায় নেবো ভাবছি, এমন অবস্থায় হাজার বইয়ের স্তুপে কাভার ছাড়া একটি বইয়ের দিকে নজর গেলো। প্রথম ৫/৬ পৃষ্টা ছাড়া একটি বই হাতে নিয়ে দেখি সেই বই আমার কাংখিত সেই বইঃ ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা।
জনাব আব্দুল মান্নানের কাছে ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা খোঁজতে গিয়ে কে দেখে আমার তৃপ্তির হাসি। মাত্র ১দিনে আমি পুরো বই পড়ে শেষ করি। কারণ তখন আমার রক্ত কণিকায় প্রবাহিত হচ্ছিলো সর্বোচ্চ মাত্রার বিদ্যুৎ প্রবাহ। আমি সাথী হবো, আমি সাথী শপথ নেবো।
শ্রদ্ধেয় আব্দুল মান্নান ভাই অসুস্থ। তার জন্য সবাই দোয়া করবেন। আমার ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা এখনো স্বপ্নে, তা যেন দেখা দেয় বাস্তবে।

লেখক: সাবেক ছাত্রনেতা।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

সম্পাদক : কবীর আহমদ সোহেল

সম্পাদক কর্তৃক প্রগতি প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিঃ ১৪৯ আরামবাগ,ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত। বার্তা ও বাণিজ্যিক কাযালয়: ২০৭/১ ফকিরাপুল, আরামবাগ , মতিঝিল, ঢাকা-১০০০।

সিলেট অফিস: ২৩০ সুরমা টাওয়ার (৩য় তলা)
ভিআইপি রোড, তালতলা, সিলেট।
মোবাইল-০১৭১২-০৩৩৭১৫,০১৭১২-৫৯৩৬৫৩

E-mail: provatbela@gmail.com,

কপিরাইট : দৈনিক প্রভাতবেলা.কম

শিরোনাম :
টেষ্ট অভিষেকে থাকছেন না সিলেটের লোকাল হিরোরা সুরমা নদীর তীরের স্থাপনা সরাতে ব্যবসায়ীদের মেয়রের আল্টিমেটাম জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে বৃহস্পতিবার সংলাপে বসছে আওয়ামী লীগ-জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট জামায়াতের নিবন্ধন বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারি খালেদা জিয়ার সাজার প্রতিবাদে সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল বিপিএল ষষ্ঠ আসরের প্লেয়ার্স ড্রাফটে কে কোন দলে প্রধানমন্ত্রীকে ড. কামাল হোসেনের চিঠি সেই টেষ্ট হ্যাট্টিকম্যান অলক কাপালী সিলেটের টেষ্ট অভিষেকটা স্মরণীয় হয়ে থাকবে আশা অলক কাপালীর আরেকটিবার আওয়ামী লীগকে ভোট দিনঃ শেখ হাসিনা পুণ্যভূমি সিলেটে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল জিম্বাবুয়েকে ‘হোয়াইটওয়াশ’ করার স্বাদ নিলো টাইগাররা বিষধর সাপ রাসেল ভাইপারকে পিটিয়ে মেরে ফেলা হলো সাত দফার এক দফাও মানা হবে নাঃ ওবায়দুল কাদের নিবন্ধন ফিরে পাবার আশায় জামায়াতে ইসলামী সরকারকে মওদুদের হুশিয়ারী সিলেট সিক্সার্সের হয়ে খেলবেন বিতর্কিত ওয়ার্নার বিমানবাহিনী এগিয়ে যাচ্ছেঃ প্রধানমন্ত্রী সিলেটে ইয়াবাসহ যুবক আটক সিপিএল চ্যাম্পিয়ন ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স ৩২ ধারা বহাল রেখে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে সংসদীয় কমিটি বাহরাইনকে ১০-০ গোলে উড়িয়ে শুভসূচনা বাংলাদেশের রোহিঙ্গাদের সাহায্য করতে ঢাকাকে সমর্থন দেবে দিল্লিঃ শ্রিংলা ৯ম থেকে ১৩তম গ্রেডের চাকরিতে থাকছে না কোটা নির্বাচনের আগে বর্তমান সংসদ ভেঙে দেওয়াসহ ৫দফা দাবী উত্তরমুখী হয়ে লাভ নেই, ওখানে সাড়া দেওয়ার মতো কেউ নেই আইডিইবি সম্মেলন উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতলো মালদ্বীপ জুড়ীতে বাংলাদেশের খবর’র বর্ষপূর্তি উদযাপন মেডিকেল বোর্ডে খালেদার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের রাখা হয়নি শনিবার যুক্তফ্রন্ট-ঐক্য প্রক্রিয়ার যৌথ ঘোষণা আসছে সারাদেশে পালন করা হবে শেখ হাসিনার জন্মদিন সমাজসেবী আমিন আলীর ইন্তেকাল এবার স্বরচিত কবিতা পাঠ করলেন জগলুল হায়দার যশোরে সাবেক ফুটবল কোচ ওয়াজেদ গাজীর দাফন সম্পন্ন মন্ত্রণালয়ের কাছেই বিদ্যুৎ বিল পাওনা ৬৬৮ কোটি টাকা! কাভার্ডভ্যান পোড়ানোর মামলায় খালেদার জামিন নামঞ্জুর চলে গেলেন নওয়াজ শরীফের স্ত্রী কুলসুম রাজধানীর ১৪ হাসপাতাল বন্ধের নির্দেশ মৌসুমী, অপু ও ওমরসানি দুবাই যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে ড. কামাল সংবিধান অনুযায়ী ডিসেম্বরে নির্বাচন হবে `এ কথা শুনেই মান্না, জুড়ে দেয় কান্না।’ বিকল্পধারা এখন স্বকল্প হয়ে গেছে ‘তিনিও আনকনটেস্টের এমপি’ আমরা তোমাদের কাছে কৃতজ্ঞ: ডা. বদরুদ্দোজা নির্বাচন নাও হতে পারে: ড. কামাল যাঁকে র‌্যাঙ্ক দিতে বাধ্য হন পাক জেনারেল “ কোনোরকম বিশৃঙ্খলা সহ্য করা হবে না’- হাসিনা