,

জননেতা আব্দুল মান্নান, ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা এবং সেই  তৃপ্তির হাসি

মাওলানা মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম, কাতার:  ১৯৮৬ সালের মাঝামাঝি সময়। আমার রক্ত কণিকার কারেন্ট তখন চলে সর্বোচ্চ গতিতে। কারণ তখন আমি ইসলামী ছাত্রশিবিরের একজন সক্রিয় কর্মী। সুজাউল মাদ্রাসা থেকে চান্দগ্রাম মাদ্রাসা হয়ে ভর্তি হয়েছি গাংকুল মাদ্রাসায়। শিবিরের সাথী শপথ নেয়ার জন্য দিওয়ানা হালত।
শিবিরের সাথী হওয়ার জন্য ২টা শর্ত আমাকে বড়ই বিব্রতকর অবস্থায় ফেলেছে। সংগঠনে সময় দেয়ার কাজ, সংগঠনের কিছু বই নোট করা আর কিছু কুরআন হাদীস মুখস্ত করার কাজটা অনেক আগেই আমি সেরে রেখেছি। কিন্ত বিব্রতকর ২টি শর্তের বেড়াজালে বন্দি হয়ে আমি সাথী হতে পারছিনা। শর্তগুলো হলোঃ
১. একাধারে কমপক্ষে ৩ মাস নামায কাযা বন্ধ থাকতে হবে।
২. সাথীদের জন্য নির্ধারিত অধ্যয়নের সিলেবাস পড়ে শেষ করতে হবে।
প্রথম শর্ত ৩মাস নামায কাযা বন্ধ থাকা। এই শর্তটা পুরণ করতে করতে ২মাস ১৫ দিনের মাথায় ব্রেক ফেল করেছে। আবার শুরু করেছি। ৩মাসের ভিতরে অন্য প্রস্তুতিটা সেরে নিতে পারলেই হলো।
দ্বিতীয় শর্ত সিলেবাস। সিলেবাসের সকল বই পড়া শেষ করেছি। মাত্র ০১টি বই ছাড়া। বইটির নাম “ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা”। লিখেছেনঃ ড. আব্দুল করিম জায়দান। বাজারে সে বই নাই। সংগঠনের লাইব্রেরীতেও এই বই নাই।
শ্রদ্ধাভাজন ডা. হিফজুর রহামন বললেন, মান্নান ভাইয়ের কাছে পেতে পারেন। সেই সুবাদে একদিন হাজির হলাম জননেতা আব্দুল মান্নান ভাইয়ের বাড়ীতে। বড়লেখার শহরের পাদদেশ মুড়িরগুল এলাকাতে উনার বাড়ী।
জনাব আব্দুল মান্নান ভাইয়ের বাড়ীতে পৌছে আমার চোঁখ ছানাবড়া। যে দিকে তাকাই, শুধু বই বই আর বই। বাঁশবেতের বেড়া দিয়ে তৈরী ঘরে আমাকে বসতে দেয়া হলো, উপযুক্ত আপ্যায়নও করানো হলো। আমাকে সীমাহীন সমাদর করা হলো। কিন্তু সমস্যা হলো, আব্দুল মান্নান ভাইয়ের বিশাল বই ভান্ডার সংরক্ষণের জন্য উপযুক্ত আলমিরা নাই। একজন প্রাইমারী স্কুল মাষ্টার যেখানে পরিবার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন, সেখানে নান্দনিক আলমিরাতে বই সাজিয়ে রাখবেন, সেই সুযোগ আর সামর্থ কোথায়?
আমার বই খোঁজা শুরু হলো। সেই সুযোগে জনাব আব্দুল মান্নান ভাইয়ের বই গুলোও একটু গুঁছিয়ে নিচ্ছি। দেখলাম, একই বইয়ের যতটি সংস্করণ বা মুদ্রণ বের হয়েছে, জনাব আব্দুল মান্নান তার প্রতিটিই কমপক্ষে ১কপি ক্রয় করেছেন। তিনি যেখানেই যেতেন, কিছু বই কিনতেন। আমার এখনো মনে পড়ে নামায রোযার হাকিকত মোট ১৪ কপি বই পেয়েছিলাম তার ব্যক্তিগত লাইব্রেরীতে। কিন্তু আমার কাংখিত সেই “ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা” নামক বইটি পাচ্ছিনা।
অনেক চেষ্টা, পরিশ্রমের মধ্যে চলে গেলো কমপক্ষে ৩ঘন্টা। তিনিও ইতিমধ্যে আমাকে সহযোগিতা করেছেন অনেক। কিন্তু বইটি পাওয়া গেলো না। এর মাঝে আপ্যায়ন শেষ হলো, জনাব আব্দুল মান্নান আমার সম্পর্কে অনেক কিছু জেনে নিলেন। তিনির সম্পর্কে আমার কিছুই জানা হলো না। কারণ তাকে আমি কোন প্রশ্ন করবো, এমন বয়স, সাহস, যোগ্যতা কিছুই আমার ছিলনা। জামায়াতের আন্দোলনে কিংবদন্তী তূল্য মানুষটা তখন আমার কাছে এবং আমার তুলনায় ছিলেন অনেক অনেক উঁচুতে থাকার এক ব্যক্তিত্ব।
হতাশ মন নিয়ে যখন উনার বাসা থেকে বিদায় নেবো ভাবছি, এমন অবস্থায় হাজার বইয়ের স্তুপে কাভার ছাড়া একটি বইয়ের দিকে নজর গেলো। প্রথম ৫/৬ পৃষ্টা ছাড়া একটি বই হাতে নিয়ে দেখি সেই বই আমার কাংখিত সেই বইঃ ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা।
জনাব আব্দুল মান্নানের কাছে ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা খোঁজতে গিয়ে কে দেখে আমার তৃপ্তির হাসি। মাত্র ১দিনে আমি পুরো বই পড়ে শেষ করি। কারণ তখন আমার রক্ত কণিকায় প্রবাহিত হচ্ছিলো সর্বোচ্চ মাত্রার বিদ্যুৎ প্রবাহ। আমি সাথী হবো, আমি সাথী শপথ নেবো।
শ্রদ্ধেয় আব্দুল মান্নান ভাই অসুস্থ। তার জন্য সবাই দোয়া করবেন। আমার ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা এখনো স্বপ্নে, তা যেন দেখা দেয় বাস্তবে।

লেখক: সাবেক ছাত্রনেতা।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

সম্পাদক : কবীর আহমদ সোহেল

সম্পাদক কর্তৃক প্রগতি প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিঃ ১৪৯ আরামবাগ,ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত। বার্তা ও বাণিজ্যিক কাযালয়: ২০৭/১ ফকিরাপুল, আরামবাগ , মতিঝিল, ঢাকা-১০০০।

সিলেট অফিস: ২৩০ সুরমা টাওয়ার (৩য় তলা)
ভিআইপি রোড, তালতলা, সিলেট।
মোবাইল-০১৭১২-০৩৩৭১৫,০১৭১২-৫৯৩৬৫৩

E-mail: provatbela@gmail.com,

কপিরাইট : দৈনিক প্রভাতবেলা.কম

শিরোনাম :
তামিমের সেঞ্চুরী, অল্পের জন্য বঞ্চিত সাকিব সিলেট নগরীর রেস্টুরেন্টে নোংরা-অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ! রক্তাক্ত মাহমুদুর রহমান মাহমুদুর রহমানকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে ছাত্রলীগ ১০ হাজার ইয়াবাসহ এক রোহিঙ্গা নারী আটক কোনো সংলাপেরও প্রয়োজন নেইঃ ওবায়দুল কাদের গুপ্তধনের খোঁজে ছয় ঘণ্টা খোঁড়াখুঁড়ি মাত্র ৫ ঘন্টা সময় নিজের জন্য,বাকি সময় বাংলার মানুষের জন্য রাজশাহীতে বিএনপি-জামায়াত টানাপোড়েন উন্নয়ন,পরিবর্তনের স্বার্থে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছেঃ জুবায়ের জুড়ীতে শ্রমিকের টাকা আত্মসাৎয়ের অভিযোগ ওসমানীতে রোগীর স্বজনকে ধর্ষণ আবেদনময়ী এই প্রেসিডেন্টের না জানা কথা ‘গোল্ডেন বল’ লুকা মদ্রিচের উদীয়মান ফুটবলারের খেতাব জিতলেন এমবাপ্পে গোল্ডেন বুট জিতলেন হ্যারি কেইন রাশিয়া বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স জুবায়েরের প্রচারণায় ১১ হাজার জনশক্তি মাঠে আমীর খসরুর কাছে পদবঞ্চিতদের নালিশ বিএনপি থেকে সেলিম বহিস্কার গুডবাই ব্রাজিল, সেমিতে বেলজিয়াম দারুণ জয়ে শেষ চারে ফ্রান্স সিসিক নির্বাচনে জোটের প্রার্থী চুড়ান্ত হয়নি বাংলাদেশ টেষ্টে সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড গড়লো অ্যান্টিগায় গভীর রাতে ঢাবি ক্যাম্পাস ৩ ছাত্রী হলের মিছিলে উত্তাল ভূয়া তালাকনামায় প্রতারিত শাহেদা ফখরুলের বক্তব্যের পাল্টা অ্যাকশনে জামায়াত উইম্বলডনের প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নিলেন শারাপোভা সিসিক নির্বাচনে জোটের প্রার্থীকে অ্যাপরুভ করেছে জামায়াত: মির্জা ফখরুল বিএনপি নেতা খসরু’র বাসায় পুলিশী তল্লাশি জুড়ীতে এক মৃত্যুকূপে চলছে শিশুদের পাঠদান মাছ -মুরগী ব্যবসায়ী, মহরীর-জুয়াড়ী, সিলেট ছাত্রদলের কান্ডারী কলম্বিয়ার স্বপ্নভঙ্গ, শেষ আটে ইংল্যান্ড কোয়ার্টার ফাইনালে সুইডেন রণবীর-দীপিকা দুজনে দুজনার হতে চলেছেন তিন সিটি নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ ১০ জুলাই শেষ পর্যন্ত পদত্যাগই করলেন হোর্স্ট সিহোফার মন ভরিয়ে দেয়া ম্যাচে জাপানকে হারিয়ে কোয়ার্টারে বেলজিয়াম কারামুক্ত হলেন ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি রাজিব নেইমারময় ম্যাচে ব্রাজিলের কাছে ধরাশায়ী মেক্সিকো প্রধানমন্ত্রী আম উপহার পাঠিয়েছেন জকিগঞ্জে বন্যার্তদের ত্রাণ বিতরণ রোহিঙ্গারা নাগরিকত্বের নিশ্চয়তা পেলে মিয়ানমার ফিরে যাবেন গাইবান্ধা সাদুল্যাপুরে বজ্রপাতে একই পরিবারের ৩ জনের মৃত্যু সিলেটে গ্লোবাল এইড ট্রাস্ট ইউকে’র ত্রাণ বিতারণ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন হবিগঞ্জের বাহুবলে ঠেলাগাড়ি উল্টে শ্রমিকের মৃত্যু খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে রাজধানীতে বিএনপির বিক্ষোভ রোহিঙ্গা-বাংলাদেশের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করতে এ সফরঃ গুতেরেস খুলনায় বিশ্বকাপ ফুটবলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ আহত ৩