কাঁটাতারের বেড়া দিচ্ছে মিয়ানমার

প্রকাশিত: ১:৩৪ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০১৮

কাঁটাতারের বেড়া দিচ্ছে মিয়ানমার

 বিশ্বভূবন ডেস্ক: সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া দিচ্ছে মিয়ানমার। নিরাপত্তার অজুহাতে নতুন করে মিয়ানমারে প্রবেশ পথ বন্ধ করে দিচ্ছে। কোথাও কোথাও কংক্রিটের দেওয়াল নির্মাণ করা হচ্ছে। সীমান্ত পথ সুরক্ষা জোরদারের চেষ্টা চালাচ্ছে দেশটি। দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল খবর দিয়েছে, ১৭০ মাইলের সীমান্ত এলাকার বেশিরভাগ অংশ জুড়ে এসব পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। কোথাও খোঁড়া বাঙ্কার, কোথাও আবার স্থাপিত হচ্ছে সীমান্ত নিরাপত্তা চৌকি। বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষিবাহিনীর সদস্য ও শরণার্থীরা ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে জানায়, সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে মিয়ানমার সেনাবাহিনী সীমান্ত এলাকায় এসব কাজ জোরালো করেছে। মিয়ানমারের জাতিগত সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের স্থায়ীভাবে বিতাড়নের জন্য চালানো কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এসব কাজ চলছে। ওয়াশিংটনের ন্যাশনাল ওয়ার কলেজের অধ্যাপক জাচারি আবুজা বলেন, মিয়ানমার মনে করছে বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গাদের বের করে দেওয়া সম্ভব হয়েছে আর তাদের ফেরাকে আজাবে পরিণত করতে যাচ্ছে। গত বছরের ২৫ আগস্ট রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পর পূর্ব-পরিকল্পিত ও কাঠামোবদ্ধ সহিংসতা জোরালো করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। হত্যা-ধর্ষণসহ বিভিন্ন ধারার সহিংসতা ও নিপীড়ন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর প্রায় ৭ লাখ মানুষ। তারা কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে। আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পালিয়ে আসা বাংলাদেশ-মিয়ানমার প্রত্যাবাসন চুক্তি সম্পন্ন হলেও তা কার্যকরের বিষয়টি এখনও প্রক্রিয়াধীন। কেবল গত বছর আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত ৭ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে এলেও এখন পর্যন্ত কেবল ৩৮৮ জনকে ফেরত নেওয়ার প্রক্রিয়া চালু রাখার কথা জানিয়েছে মিয়ানমার। এই অবস্থাতেই গ্রামগুলোতে বুলডোজার চালিয়ে আলামত নষ্ট, বিপুল সামরিকায়ন, উন্নয়ন প্রকল্প চলমান থাকা, প্রত্যাবাসন নিয়ে বৌদ্ধ জনগোষ্ঠীর হুমকির ধারাবাহিকতায় রাখাইনে বৌদ্ধদের মডেল গ্রাম গড়ে উঠছে বলে খবর পাওয়া যায়। এবার সীমান্তে নতুন করে সুরক্ষার পদক্ষেপের কথা জানা গেলো।

সর্বশেষ সংবাদ