টরন্টোতে ভ্যানের চাপায় ১০ পথচারী নিহত

প্রকাশিত: ৮:৪০ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২৪, ২০১৮

টরন্টোতে ভ্যানের চাপায় ১০ পথচারী নিহত

বিবিসি: কানাডার টরন্টোতে পথচারীদের ওপর এক ব্যক্তি ভ্যান তুলে দিলে ১০ জন নিহত ও ১৫ জন আহত হয়। এ ঘটনায় অ্যালেক মিনাসিয়ান (২৫) নামের এক সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। হামলার কারণ জানা যায়নি।

টরেন্টো পুলিশ মুখপাত্র মেগান গ্রে জানান, সোমবার (২৩ এপ্রিল) স্থানীয় সময় দুপুর ১টায় এ ঘটনা ঘটেছে।

পথচারীদের ধারণ করা ভিডিওতে দেখা যায়, ভ্যানচালক পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে একটি বস্তু তাক করে আছে। কর্মকর্তারা তাকে ভ্যান থেকে নেমে যাওয়ার জন্য চিৎকার করে বলছিলেন। এর কিছুক্ষণ পর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

টরন্টো পুলিশের উপপ্রধান পিটার ইউয়েন ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের সহায়তা করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ঘটনাটির দীর্ঘ তদন্ত করতে হবে।

শহরের পুলিশপ্রধান মার্ক সন্ডার্স সংবাদ সম্মেলনে বলেন, পথচারীদের ওপর ইচ্ছাকৃতভাবে ভ্যান উঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এর কারণ এখনো অস্পষ্ট। অ্যালেক মিনাসিয়ান টরন্টোর রিচমন্ড হিলের বাসিন্দা, যাকে তারা আগে চিনতেন না।

কানাডার জননিরাপত্তা মন্ত্রী র‍্যাল্ফ গুডেল বলেন, এ একটা ভয়াবহ হামলা।

স্থানীয়  ফিঞ্চ এভিনিউ ও ইয়ঞ্জ স্ট্রিটে এ ঘটনা ঘটে।

ঘ্টনাস্থল থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে উন্নত সাত দেশের জোটের (জি৭) পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা বৈঠক করছিলেন। দেশগুলো হলো কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি ও জাপান।

ঘটনাস্থল থেকে পাওয়া একটি ছবিতে দেখা যায়, সশস্ত্র পুলিশ ও চিকিৎসাকর্মীরা আহতদের সেবা দিচ্ছে। কমলা রঙের একটি ব্যাগ দেখা যায়, যাতে মরদেহ রাখা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

টরোন্টো পুলিশের মুখপাত্র জেনিফারজিৎ সিধু  বলেন, গাড়িটি পুলিশ থামিয়ে দেয়।

ইয়ঞ্জ স্ট্রিটের দীর্ঘ জায়গা হলুদ ফিতা দিয়ে পুলিশ ঘিরে রয়েছে। কয়েকটি জায়গায় লোকজন আক্রান্ত হয়েছে।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো অটোয়া থেকে টুইটারে বলেন, ‘টরোন্টোর ইয়ঞ্জ স্ট্রিট ও ফিঞ্চের ঘটনায় আক্রান্তদের সমবেদনা জানাচ্ছি।’ তিনি বলেন, ‘যারা ঘটনার পর দ্রুত পরিস্থিতি মোকাবিলা করেছেন তাদের ধন্যবাদ – আমরা মনোযোগের সঙ্গে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি।’

এক প্রত্যক্ষদর্শী সিটি নিউজকে বলেন জানান, মেইল বাক্সের ওপর ভ্যান উঠিয়ে দেওয়া হয়।’

প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ‘আমি দেখেছি অন্তত ছয়-সাতজনকে আঘাত করা হলো এবং তারা উড়ে গেল। মনে হয় তারা রাস্তাতেই মারা গেল।’

টরোন্টোর মেয়র জন টরি বলেন, ‘এটা অত্যন্ত মর্মান্তিক ঘটনা। আমরা কীভাবে জীবনযাপন করি বা আমরা কারা তা এ ঘটনা দিয়ে বোঝা যায় না।’

যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে যানবাহন চালিয়ে হামলার ঘটনা ঘটে। ২০১৭ সালে অক্টোবরে নিউইয়র্কে এক লোক বাইসাইকেলের রাস্তায় ভ্যান উঠিয়ে দিলে আটজন নিহত হয়।

সর্বশেষ সংবাদ