,

দারিদ্র বিমোচন ও অসমতা হ্রাস এবারের বাজেট প্রণয়নের মূল্য লক্ষ্য

প্রভাতবেলা প্রতিবেদকঃ এবারের বাজেট প্রণয়নের মূল্য লক্ষ্য হলো দারিদ্র বিমোচন ও অসমতা হ্রাস এবং জনগণের জীবনমানে মৌলিক ও গুণগত পরিবর্তন আনা বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

 

আজ বৃহস্পতিবার (৭ জুন) কালো ব্রিফকেসে বন্দী বাজেট নিয়ে বেলা পৌনে ১টায় জাতীয় সংসদে প্রবেশ করেন  অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ।

 

‘সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রায় বাংলাদেশ’ শিরোনামে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।  বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী বলেন, এটা মধ্যমেয়াদী নীতি-কৌশল।

 

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত টানা ১০ বাজেট পেশ রেকর্ড গড়েছেন। এবার ১২তম বাজেট পেশ করার মধ্য দিয়ে বিএনপি’র প্রয়াত অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমানের সমান বাজেট দেওয়ার গৌরব অর্জন করলেন তিনি। মুহিত সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের আমলের অর্থমন্ত্রী হিসেবে প্রথম বাজেট পেশ করেন ১৯৮২-৮৩ অর্থবছরে।

 

সরকারের শেষ বছরে ২৫ শতাংশ ব্যয় বাড়িয়ে ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকার বাজেট পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ধারণা করা হচ্ছে এ বাজেটই অর্থমন্ত্রী হিসেবে তার শেষ বাজেট বক্তৃতা। তবে প্রস্তাবিত ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে স্বায়ত্তশাসিত সংস্থাসমূহের প্রায় ৭ হাজার ৮৬৯ কোটি বরাদ্দ বিবেচনায় নিলে বাজেটের আকার দাঁড়াবে প্রায় ৪ লাখ ৭২ হাজার ৪৪২ কোটি টাকা।

 

এবারের বাজেটে রাজস্ব আয়ের সম্ভাব্য আকার ২ লাখ ৯৬ হাজার ২শ’ ১ কোটি টাকা।

 

এনবিআর’র বাইরে অন্যান্য খাত থেকে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৯ হাজার ৭২৭ কোটি টাকা (জিডিপি’র দশমিক ৪ শতাংশ) এছাড়া কর বর্হিভূত খাত থেকে রাজস্ব আহরিত হবে ৩৩ হাজার ৩৫২ কোটি টাকা (জিডিপি’র ১ দশমিক ৩ শতাংশ)।

 

প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যয়ের খাতগুলো উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কাজের শ্রেণি-বিন্যাস অনুযায়ী কাজগুলোকে তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে সামাজিক অবকাঠামো, ভৌত অবকাঠামো ও সাধারণ সেবা খাত। সামাজিক অবকাঠামো খাতে বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে ২৭ দশমিক ৩৪ শতাংশ, যার মধ্যে মানবসম্পদ খাতে (শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য খাত) বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে ২৪ দশমিক ৩৭ শতাংশ।

 

 

আগামী অর্থবছরের জন্য বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি চূড়ান্ত হয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার ৮৬৯ কোটি টাকা। বাজেটে মূল্যস্ফীতি ধরা হয়েছে ৫ দশািমক ৫ শতাংশ, প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা রাখা হয়েছে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ।

 

সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীর আওতায় উপকারভোগীর সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে ১০ লাখ। মাতৃত্বকালীন এবং দুগ্ধদানকারী গরীব কর্মজীবি মায়েদের ভাতা ৩শ টাকা করে বাড়ানো হয়েছে।

 

৪ লাখ ২৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ের মধ্যে বড় দুই খাত উন্নয়ন ব্যয় এবং অনুন্নয়ন ব্যয়। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি এডিপির আকার ধরা হয়েছে হয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার ৮শ’ ৬৯ কোটি টাকা।

 

এবার অনুন্নয়ন বাজেটের সম্ভাব্য আকার ধরা হয়েছে ২ লাখ ৮৭ হাজার ৩শ’ ৩১ কোটি টাকা। রাস্তা-ঘাট, স্কুল, কলেজ, হাসপাতাল, বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ নানা ধরনের অবকাঠামো নির্মাণের বাইরে সরকার যে ব্যয় করে তাই অনুন্নয়ন ব্যয়। এর বড় অংশ চলে যায় সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা, পেনশন পরিশোধ এবং দেশের ভেতর ও বিদেশ থেকে নেয়া ঋণের সুদ পরিশোধে, ভর্তুকি ও প্রণোদনা ব্যয় মেটাতে। আবার সরকার বছরজুড়ে বিভিন্ন ধরনের পূর্ত কার্য করে, শেয়ার ও ইক্যুইটিতে বিনিয়োগ করে তার সংস্থানও হয় অনুন্নয়ন মূলধনী ব্যয় থেকে।

 

আওয়ামী লীগ সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদের শেষ বাজেট এটি। ২০০৮ সালে নির্বাচিত হবার পর বর্তমান সরকারের দশম বাজেট। অর্থমন্ত্রী হিসেবে এটা আবদুল মুহিতের ১২তম বাজেট। বর্তমান সরকারের প্রথম মেয়াদে ২০০৯-১০ অর্থ বছরে ১ লাখ ১৩ হাজার ৮১৫ কোটি টাকার বাজেট দিয়ে শুরু করেছিলেন মুহিত।এবারের বাজেটে রাজস্ব আয়ের সম্ভাব্য আকার ২ লাখ ৯৬ হাজার ২শ’ ১ কোটি টাকা।

 

আগামী অর্থবছরের জন্য বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি চূড়ান্ত হয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার ৮৬৯ কোটি টাকা। বাজেটে মূল্যস্ফীতি ধরা হয়েছে ৫ দশািমক ৫ শতাংশ, প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা রাখা হয়েছে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ।

 

সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীর আওতায় উপকারভোগীর সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে ১০ লাখ। মাতৃত্বকালীন এবং দুগ্ধদানকারী গরীব কর্মজীবি মায়েদের ভাতা ৩শ টাকা করে বাড়ানো হয়েছে।

 

৪ লাখ ২৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ের মধ্যে বড় দুই খাত উন্নয়ন ব্যয় এবং অনুন্নয়ন ব্যয়। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি এডিপির আকার ধরা হয়েছে হয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার ৮শ’ ৬৯ কোটি টাকা।

 

এবার অনুন্নয়ন বাজেটের সম্ভাব্য আকার ধরা হয়েছে ২ লাখ ৮৭ হাজার ৩শ’ ৩১ কোটি টাকা। রাস্তা-ঘাট, স্কুল, কলেজ, হাসপাতাল, বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ নানা ধরনের অবকাঠামো নির্মাণের বাইরে সরকার যে ব্যয় করে তাই অনুন্নয়ন ব্যয়। এর বড় অংশ চলে যায় সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা, পেনশন পরিশোধ এবং দেশের ভেতর ও বিদেশ থেকে নেয়া ঋণের সুদ পরিশোধে, ভর্তুকি ও প্রণোদনা ব্যয় মেটাতে। আবার সরকার বছরজুড়ে বিভিন্ন ধরনের পূর্ত কার্য করে, শেয়ার ও ইক্যুইটিতে বিনিয়োগ করে তার সংস্থানও হয় অনুন্নয়ন মূলধনী ব্যয় থেকে।

 

 

এবারের বাজেটকে আরো অংশগ্রহণমূলক করার লক্ষ্যে অর্থ বিভাগের ওয়েবসাইড  http://www.mof.gov.bd- এ বাজেটের সকল তথ্যাদি ও গুরুত্বপূর্ণ দলিল যে কোনো ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান পড়তে ও ডাউনলোড করতে পারবে এবং দেশ বা বিদেশ থেকে ওই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফিডব্যাক ফরম পূরণ করে বাজেট সম্পর্কে মতামত ও সুপারিশ পাঠানো যাবে।

 

আওয়ামী লীগ সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদের শেষ বাজেট এটি। ২০০৮ সালে নির্বাচিত হবার পর বর্তমান সরকারের দশম বাজেট। বর্তমান সরকারের প্রথম মেয়াদে ২০০৯-১০ অর্থ বছরে ১ লাখ ১৩ হাজার ৮১৫ কোটি টাকার বাজেট দিয়ে শুরু করেছিলেন অর্থমন্ত্রী হিসেবে আবুল মাল আবদুল মুহিত।

 

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

সম্পাদক : কবীর আহমদ সোহেল

সম্পাদক কর্তৃক প্রগতি প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিঃ ১৪৯ আরামবাগ,ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত। বার্তা ও বাণিজ্যিক কাযালয়: ২০৭/১ ফকিরাপুল, আরামবাগ , মতিঝিল, ঢাকা-১০০০।

সিলেট অফিস: ২৩০ সুরমা টাওয়ার (৩য় তলা)
ভিআইপি রোড, তালতলা, সিলেট।
মোবাইল-০১৭১২-০৩৩৭১৫,০১৭১২-৫৯৩৬৫৩

E-mail: provatbela@gmail.com,

কপিরাইট : দৈনিক প্রভাতবেলা.কম

শিরোনাম :
সিলেটে প্রি-পেইড ডিজিটাল মিটার রিচার্জে নিত্য ভোগান্তি আমার মৃত্যু, বর্ষাদিন বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ তাজুল ইসলাম চৌধুরী আর নেই নেপালকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের কিশোরীরা সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার চলে গেলেন রাজুর হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে সিলেটে বিক্ষোভ মিছিল সরকার ‘সংলাপে’ বাধ্য হবেঃ মওদুদ আহমেদ মেয়রের বাসার সামনেই ছাত্রদলের হামলায় রাজু খুন আরিফ সিসিক মেয়র নির্বাচিত “দায়িত্বশীল নেতার অডিও রেকর্ড পুলিশের হাতে” বিএনপি-জামায়াত ইতিহাসকে বিকৃত করছেঃ তথ্যমন্ত্রী স্বচ্ছ মন নিয়ে আলোচনায় আসুনঃ রিজভী আহমেদ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করলেন ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেস সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন আর নেই শনির আখড়ায় ট্রাকচাপায় আহত শিক্ষার্থী শঙ্কামুক্ত সিসিক’র স্থগিত ২কেন্দ্রের ভোট ১১ আগস্ট বৃহস্পতিবার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাজশাহী ও বরিশালে নৌকা, সিলেটে আরিফ সিসিক নির্বাচনে সংবাদকর্মীদের উপর ছাত্রলীগের হামলা সিলেটের জালালাবাদ আব্দুল গফুর স্কুল সেন্টারে নৌকার বিজয় বরিশাল সিটির পাঁচ কেন্দ্রে সেরনিয়াবাত সাদিক এগিয়ে আরিফ এগিয়ে ইভিএমে ভোট হওয়া দুই কেন্দ্রে জাবালে নূর পরিবহনের রুট পারমিট বাতিল করা হবেঃ নৌমন্ত্রী পুনঃনির্বাচনের জোর দাবী মেয়র প্রার্থী জুবায়েরের ভোটের নামে লুটপাট সিলেটের ইতিহাসে কলংকজনক অধ্যায়ঃ জুবায়ের আ.লীগ সা.সম্পাদক দৌড়াদৌড়ি করছেনঃ খন্দকার মোশাররফ আমরা বধির রাষ্ট্রের নাগরিক কলেজশিক্ষার্থীদের উপর উঠে গেল যাত্রীবাহী বাস এলাকবাসীর বন্ধু ,সেবক ছিলামঃ জিল্লুর রহমান উজ্জ্বল বরিশালে আয়শা তৌহিদকে বহিস্কার করলো বিএনপি তামিম-মাহামুদুল্লাহর নান্দনিক ব্যাটিংয়ে লড়িয়ে পুঁজি কামরানের নির্বাচনী সমাবেশে ছাত্রলীগের মারামারি গাজীপুরে ২ টেক্সটাইল কারখানায় অগ্নিকাণ্ড ক্যারিবীয় দ্বীপে তামিম ইকবালের দ্বিতীয় সেঞ্চুরী উদযাপন বাংলাদেশ হবে সুইজারল্যান্ড অব দ্য ইস্টঃ প্রধানমন্ত্রী ব্যক্তিস্বার্থের রাজনীতি কখনও কিছু দিতে পারে নাঃ শেখ হাসিনা ইসির নিষেধাজ্ঞা থাকলেও গ্রেফতার চলছেঃ খন্দকার মোশাররফ সকালে সংবাদ সম্মেলন: সন্ধ্যায় শেষ জনসভা আরিফের পাশে নেই শরীকরা: নাখোশ বিএনপি উন্নত বসবাস উপযোগি নগরী গড়ে তোলা হবে: পথসভায় জুবায়ের শনিবার এডভোকেট জুবায়েরের শেষ নির্বাচনী জনসভা হাফিজ হারুনের বাড়ীতে পুলিশী হয়রানী ইসিকে পদত্যাগ করতে বললেন বিএনপি মহাসচিব সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় পরীক্ষায় অসদুপায়, বহিস্কার ১৪ ওয়ার্ডের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করেতে চাইঃ তৌফিকুল হাদী মাদকের সাথে যারা জড়িত তাদের এদেশে ছাড়া করবোঃ বেনজির সিলেট মহানগর যুবদল নেতা মন্তাজ মুন্নাকে আটকে নিন্দা ঘুড়ি মার্কার গণসংযোগে শফিউল আলম নাদেল সিলেটে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন কাউন্সিল প্রার্থী সাজুয়ান আহমেদের ইশতেহার ঘোষণা