,

‘কোচিং বাণিজ্য’ প্রসংগে কিছু কথা

কোচিং বানিজ্য নীতিমালা বন্ধের গেজেট আকারে প্রকাশিত হওয়ার সাথে বিভিন্ন জনেরা বিভিন্ন প্রকার মন্তব্য প্রকাশ করেছেন ফেইসবুকে। আমার কাছে বেশীর ভাগ মন্তব্য গুলোকেই মনে হয়েছে আত্মকেন্দ্রিক মন্তব্য। কোন ইতিবাচক সমালোচনা কমই পরিলক্ষিত হয়েছে। এটির সাথে জড়িয়ে দেয়া হয়েছে শিক্ষকদের বেতন বৈষম্যকে,ডাক্তারদের প্রাইভেট প্রেক্টিসকে, রাজনৈতিক বিদ্বেষকে। শিক্ষাব্যবস্থার আসল চিত্রকে সামনে রেখে গঠন মূলক বক্তব্য কমই পরিলক্ষিত হয়েছে। একজন শিক্ষক হিসাবে এমন একটি সংবেদনশীল বিষয়ে দু’লাইন না লিখলে নিজের বিবেকের কাছে খারাপ লাগবে। নিজেও প্রাইভেট পড়িয়েছি দীর্ঘ বাইশ বছরের মতো। কত টাকার পাহাড় বানিয়েছি পরিশ্রমের তুলনায় তার হিসেব তারাই বলতে পারবে যারা আমার সান্নিধ্যে এসেছেন। নিজ কলেজের কম স্টুডেন্টকেই প্রাইভেট পড়িয়েছি।এদের সংখ্যা হবে প্রাইভেট পড়ানো স্টুডেন্টদের ২/৩%। বাকীরা বিভিন্ন কলেজের। সে যাইহোক সেদিকে আমি যাবনা,কারন স্বল্প পরিসরে এখানে লিখে শেষ করতে পারবো না। আমিকিছু বিষয় বুঝতে পারছিনা বিধায় এ লিখা। প্রাইভেট পড়া যদি বাজে জিনিষ হয়ে থাকে তবে নিজ গৃহে অনধিক দশ জনকে ( অন্য কলেজের) এবং নিজ কলেজে নির্ধারিত ফি নিয়ে পড়ানোর সুযোগ থাকলো কেন? কোচিং যদি বাজে হয়ে থাকে তবে প্রশিক্ষিত শিক্ষক ছাড়া অন্যরা ছাত্র পড়াবে কেন? কেন নীতিমালায় সে বিষয়ে কোন ইংগিত নাই। তাহলে দাড়ালো কি — শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়বেনা, বানিজ্যক কোচিং এ যেতে আপত্তি নেই। শিক্ষকেরা কুমিল্লা HSTTI আর ঢাকার নায়েমে গিয়ে কিসের ট্রেনিং করেন? ট্রেনিং লেস যারা ওরা পড়াবে? মেধার বিকাশ এসব কোচিং এ হয়! তবে আমি বিশ্বাস করি অনেকেই উপকৃত হয়। ছাত্রদের যদি ক্লাস মূখী করতে হয় তবে সেগুলোও বন্ধ করতে হবে। আর, শিক্ষাপ্রতিষ্টানে লেখাপড়ার সুষ্টু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে হবে। আমাকে কি কেউ বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবেন, প্রাইভেট স্কুল /কলেজে শিক্ষার্থীদের যতটুকু টেইক কেয়ার করা হয়, তার অর্ধেক এম পি ও ভুক্ত বা সরকারী প্রতিষ্টানে করা হয়? দেখুন তদন্ত করে, বেশীর ভাগ এসব সরকারী/ বেসরকারী প্রতিষ্টানে সিলেবাসের কোন তোয়াক্কাই করেনা! স্টুডেন্টরা ঠিক মতো ক্লাসে যায়না। নিয়মিত গেলে তো আরেক পরিস্থিতি হতো। ফলাফল যা হবে তা হলো, ধনীরা বাসায় স্যার নিয়ে পড়াবে, প্রাইভেট কলেজে পড়াবে, ভালো কোচিং এ কোচিং করাবে, আর জাহান্নামে যাবে মধ্যবিত্ত আর দরিদ্র শ্রেণির ছাত্ররা। মেজরিটি একটি অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ভুল বুঝবেন না,আমিও ব্যক্তিগত ভাবে কোচিং বানিজ্যের বিপক্ষে। কারণ, প্রাতিষ্টানিক পড়ালেখা তো প্রতিষ্টানেই শেষ হবে, কেন আবার স্যারের বাসায় আর কোচিং এ দৌড়া দৌড়ি হবে? কিন্তু প্রতিষ্টানে সুষ্টু শিক্ষাদানের গ্যারান্টি কে দেবে? রাজ নৈতিক দাংগা,প্রাকৃতিক দূর্যোগ, সীমিত লোকবল, দূর্নীতি বাজ শিক্ষক,অদক্ষতা ইত্যাদি কারনে যখন পড়ালেখার পরিবেশ বাঁধাগ্রস্থ হবে। রাজধানীর বিখ্যাত প্রতিষ্টানের বিখ্যাত শিক্ষকদের ও ঐসব প্রতিষ্টানের মেধাবী ও ধনী স্টুডেন্টদের মাথায় রেখে আইন প্রনয়ন মনে হয় ঠিক হবে না। সেটির জন্য তৃণমূল পর্যায়ে আরো জরীপ চালানোর প্রয়োজন আছে বলে মনে করি। শিক্ষাবিষয়ে মৌলিক সিদ্ধান্তের জন্য আরোও ভাবার প্রয়োজন আছে। শেষ পর্যন্ত এই বলে বিদায় নেই, শিক্ষার জন্য যা ভালো মনে করেছি, তাই লিখেছি। কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্টানকে হাইলাইটস বা খাটো করার জন্য নয়,তাই ভুল হলে নিজ গুনে ক্ষমা করে দেবেন।

0Shares

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক : কবীর আহমদ সোহেল

সম্পাদক কর্তৃক প্রগতি প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিঃ ১৪৯ আরামবাগ,ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত। বার্তা ও বাণিজ্যিক কাযালয়: ২০৭/১ ফকিরাপুল, আরামবাগ , মতিঝিল, ঢাকা-১০০০।

Designed by ওয়েব হোম বিডি

সিলেট অফিস: ২৩০ সুরমা টাওয়ার (৩য় তলা)
ভিআইপি রোড, তালতলা, সিলেট।
মোবাইল-০১৭১২-০৩৩৭১৫,০১৭১২-৫৯৩৬৫৩

E-mail: provatbela@gmail.com,

কপিরাইট : দৈনিক প্রভাতবেলা.কম

শিরোনাম :
ফাবিয়ানের ‘ছাদ থেকে পড়ে যাওয়া’কে এড়িয়ে যাচ্ছে স্কুল কর্তৃপক্ষ স্কলার্স হোমের শিক্ষার্থী ফাবিয়ান লাইফ সাপোর্টে ছাতকে যুবতীর রহস্যজনক মৃত্যু মোস্তাফিজই ম্যাচ ঘুরিয়েছে, বললেন মাশরাফি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের দাপুটে জয় আাদালতে মুরসীর ইন্তেকাল বনকলাপাড়ায় পিটুনিতে‘ডাকাত’ নিহত ‘এনজিওগ্রাম’ নয় যাচ্ছে ‘হার্ট লান’ মেশিন ওসমানীর এনজিওগ্রাম মেশিন যাচ্ছে সোহরাওয়ার্দীতে শুদ্ধাচার পুরস্কার পাচ্ছেন জৈন্তার ইউএনও মৌরিন বড়লেখায় স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন বড়লেখায় পানিতে ডুবে দু’বোনের মৃত্যু ঈদ উদযাপনে প্রস্তুত সিলেটঃ কখন কোথায় জামাত চাঁদ দেখা গেছে বুধবার ঈদুল ফিতর যে সূরা পাঠ করলে আল্লাহ তায়ালা রিজিকের দরজা খুলে দেন জামায়াত একটি দেশ প্রেমিক দল,তাদের কোন দোষ নেই : কর্নেল অলি আমেরিকায় সন্ত্রাসী হামলায় বড়লেখার জয়নুল নিহত নৈস্বর্গিক সৌন্দর্য’র বাংলাদেশ টাইগারদের ত্রিদেশীয় সিরিজ জয় রাজধানীর বায়ুদূষণ রোধে ব্যর্থতায় হাইকোর্টের ক্ষোভ অপূর্ণই থেকে গেল প্রিয়াঙ্কার ইচ্ছা সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা:কবে কোন জেলায় হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর লাশ, মিলছে না অনেক প্রশ্নের উত্তর! সন্তানের জন্য দুধ চুরি : দায় কার? রোযা:সুদৃঢ় ভিত্তির উপর সুচরিত্র গঠনের উপকরণ ছাত্রলীগের হাতে লাঞ্চিত নারী চিকিৎসক রোযার উদ্যেশ্য ও উপকারিতা বেসামাল নাইমুলঃ ক্ষমা প্রার্থনা রোজার উদ্দেশ্য রোযার সমৃদ্ধ ইতিহাস জুটির বিশ্ব রেকর্ড গড়ল ওয়েস্ট ইন্ডিজ গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া সোমবার এসএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশ আহলান সাহলান মাহে রামাদ্বান মওদুদ আহমদ হাসপাতালে ভর্তি সালাহউদ্দিনের দেশে ফেরা আটকে গেল ‘ফণী’ কখন কোথায় কিভাবে আঘাত হানতে পারে মনির উদ্দিন স্যার আর নেই পটুয়াখালীতে ‘ফণী’ আতঙ্ক: প্রস্তুত প্রশাসন কুষ্টিয়াজুড়ে ‘ফণী’ আতঙ্ক তীর, রূপচাঁদা, পুষ্টির তেল নিম্নমানের: ৫২ ব্র্যান্ডের পণ্যে ভেজাল হালদার খালে হাজার লিটার ফার্নেস ওয়েল, বিপর্যয়ের মুখে জীববৈচিত্র্য শমী’র বিরুদ্ধে ১’শ কোটি টাকার মানহানি মামলা বয়ফ্রেন্ড বিয়ে নাকচ করায় প্রেমিকার আত্মহত্যা! এবার মুখ খুললেন মিলার সাবেক স্বামী জব্দ হতে পারে ড. কামালের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট! জামায়াতে কোন প্রভাব পড়বে না- ডা. শফিক মঞ্জুর নেতৃত্বে জামায়াতের সংস্কারপন্থীদের নতুন মঞ্চ! তরুণ প্রজন্মকে রাজনীতি সচেতন হতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী ছাত্রদল: ৬০ ভাগ অছাত্র, ৮০ ভাগ অনিয়মিত