খালেদা জিয়ার ব্যাপারটার জন্য আমি ক্ষমা চাচ্ছি : নাঈমের মা

প্রকাশিত: ৭:২৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২, ২০১৯

খালেদা জিয়ার ব্যাপারটার জন্য আমি ক্ষমা চাচ্ছি : নাঈমের মা

প্রভাতবেলা প্রতিবেদক,ঢাকা:  বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এতিমের টাকা লুট করেছেন। তাই উপহার পাওয়া টাকা এতিমদের দিতে চায় নাঈম। অভিনেতা, উপস্থাপক শাহরিয়ার নাজিম জয়ের সাক্ষাৎকারে নাঈমের দেওয়া এ বক্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষমা চেয়েছেন তার মা নাজমা বেগম। তিনি তার ছেলের দেয়া বক্তব্যকে ‘ভুল হয়েছে’ বলে মনে করছেন। তবে এই কথাটি শিশু নাঈমকে শিখিয়ে দেয়া হয়েছিল কি না-সে বিষয়ে স্পষ্টভাবে কিছুই বলছেন না নাজমা বেগম।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে ‘প্রভাতবেলাকে কে’ নাঈমের মা নাজমা বেগম বলেন, ‘আমি প্রথমের দিক ছিলাম না। যখন শাহরিয়ার নাজিম জয় নাঈমকে বাসা থেকে তার স্টুডিওতে নিয়ে যায়, তখন আমি ছিলাম না। নাঈমকে একাই নিয়ে গিয়েছিল। আমি এর দেড় ঘণ্টা পরে সেখানে গিয়েছি। তাই নিয়ে যাইয়া যে নাঈমকে কিছু শিখাইছে কি শিখায় নাই সেটা আমি জানি না।’

ছেলের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করে নাজমা বেগম বলেন, ‘আমি বলি, ও (নাঈম) একটা ছোট মানুষ। আমি কারো দোষ দিব না। আমি ক্ষমা প্রার্থনা করছি, এই কথাটার (খালেদা জিয়ার এতিমখানার টাকা আত্মসাৎ প্রসঙ্গ) কারণে। আমি তো আর বলতে বলি নাই। আমার ছেলে বুঝেও বলে নাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘এই ঘটনার পরে শাহরিয়ার নাজিম জয় আমাদের সাথে আর কোনো যোগাযোগ করে নাই। ওই দিন ইন্টারভিউয়ের সময় শাহরিয়ার নাজিম জয় আমার ছেলের হাতে একটা খাম দিয়েছিল। আমি পরে বাসায় এসে খুলে দেখি ২ হাজার টাকা।’

ছেলের জন্য আকুতি জানিয়ে নাঈমের মা বলেন, ‘দয়া করে খালেদা জিয়ার ব্যাপারটার জন্য আমি ক্ষমা চাচ্ছি, সেটা একটু প্রচার করেন আপানারা। ওই নেত্রীর (খালেদা জিয়া) কাছে আমি, আমার ছেলের জন্য ক্ষমা চাচ্ছি। আমার স্বামী আমাদের সাথে থাকেন না। আমি আমার ছেলে ও ছোট একটা মেয়েকে নিয়ে অনেক কষ্টে জীবন চালাই। আমি বাসা বাড়িতে কাজ করে খাই। আমি চাই না, আমার ছেলে কোনো বিপদে পড়ুক।’

তিনি জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার বাশতলা গ্রামে।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ মার্চ রাজধানীর বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের সময় পানির পাইপের ছিদ্র দুই হাতে চেপে ধরে আলোচনায় ছোট্ট শিশু নাঈম। এ ঘটনার পরদিনই তার সাক্ষাৎকার নেয় টিভি উপস্থাপক ও অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম জয়। ওই সময় নাঈমের সঙ্গে তার বাবা-মাও ছিলেন। অনুষ্ঠানে নাঈমকে উপস্থাপক জয় প্রশ্ন করেন, সে পুরস্কারের সেই টাকাগুলো নেবে কি না? আর নিলেও সেই টাকা কীভাবে খরচ করবে? উত্তরে নাঈম জানায়, টাকাগুলো এতিমখানার অনাথ শিশুদের জন্য দান করে দিতে চায় সে। ছেলের এ জবাবে সায় দেন তার মা-বাবাও। এতিমখানায় কেন টাকা দিতে চায়, এমন প্রশ্নের উত্তরে নাঈম জানায়, কয়েক বছর আগে খালেদা জিয়া এতিমের টাকা লুট করেছে। তাই এই টাকা সে এতিমদের দিতে চায়। পরে নাঈমকে উপস্থাপক জয় এসব শিখিয়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠে।

এদিকে, ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার মুখে এক ভিডিও বার্তায় শাহরিয়ার নাজিম জয় দাবি করেন, শিশু নাঈমকে কোনো কথা শিখিয়ে দেননি তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘নাঈম বক্তব্য নিজের দায়িত্বে দিয়েছে। কিন্তু সে নিজে কোথাও থেকে শিখে এসেছে কি না আমি বলতে পারব না। আমি শতভাগ নিশ্চয়তা দিয়ে বলছি, আমি এটা বলিনি। তাকে শিখাইনি।’ জাতীয় কোনো নেতা নিয়ে মন্তব্য করার কোনো সাহস নেই জানিয়ে এই উপস্থাপক বলেন, ‘তাদের নিয়ে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না। কারণ তারা সবাই সম্মানিত। জাতীয় নেতা যারা বা যারা এক সময় ক্ষমতায় ছিলেন বা এখন যারা ক্ষমতায় আছেন তারা সবাই সম্মানিত। আমার মতো কোনো ক্ষুদ্র মানুষের তাদেরকে নিয়ে কোনো আলোচনা সাজে না।’

জয় বলেন, ‘নাঈম নামের ছোট্ট ছেলেটি যে কথা বলেছে সেটা আমি নিজে শুনেই হতবাক হয়েছি। আমি দ্বিতীয়বার তাকে জিজ্ঞেস করেছি। আমার ইন্টারভিউয়ের উত্তর আমি আসলে এভাবে আশা করিনি। তবে যেহেতু এটা হয়েই গেছে সেক্ষেত্রে আমি একটি দায়িত্ব নিতে পারি, কেন আমি তা প্রচার করেছি? কিন্তু আমি সবসময় মানুষ যা বলে তা মানুষের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করি। দর্শকের আছে আমি সবকিছু সঠিকভাবে পৌঁছানোর চেষ্টা করি।’

সর্বশেষ সংবাদ