আফগানিস্তানের দাপুটে জয়

প্রকাশিত: ১১:২৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯

আফগানিস্তানের দাপুটে জয়

মাঠে ময়দানে প্রতিবেদক: র‌্যাঙ্কিংয়ের কথা বললে ত্রিদেশীয় সিরিজে ফেভারিট দলটার নাম আফগানিস্তান। জিম্বাবুয়ে ও বাংলাদেশের চেয়ে যে এগিয়ে রশিদ খানরা। সেই ফেভারিটরা তিন জাতির টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু করল জয় দিয়ে। জিম্বাবুয়েকে হারাল সহজেই। যে জয় বাংলাদেশের জন্য ভয় ধরাতে যথেষ্ট।

শনিবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়েকে ২৮ রানে হারিয়েছে আফগানরা। টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে নাজিবুল্লাহ জাদরান ও মোহাম্মদ নবীর ব্যাটে রানের পাহাড় গড়েছিল দলটি। ৫ উইকেটে ১৯৭ রানের পুঁজি গড়ে আফগানরা। জবাব দিতে নেমে ৭ উইকেটে ১৬৯ রানে থেমেছে জিম্বাবুয়ের ইনিংস।

সিরিজে এটি টানা দ্বিতীয় পরাজয় জিম্বাবুয়ের। শুক্রবার নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৩ উইকেটে হারে দলটি। রবিবার আফগানিস্তান নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে টাইগারদের। যে ম্যাচের আগে স্বাগতিকদের জন্য ভয় ধরানো ব্যাটিং উপহার দিল দলটি। সিরিজে প্রতিটি দল একে অপরের সঙ্গে দুইবার করে মুখোমুখি হবে। এরপর সেরা দুটি দল খেলবে ফাইনাল।

হ্যামিল্টন মাসাকাদজার ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্তে এদিন খুশিই হয়েছিলেন রশিদ খান। বলেছিলেন, টস জিতলে ব্যাটিংই নিতেন তিনি। কেন এমনটা বলেছিলেন অধিনায়ক, প্রমাণ দিলেন আফগান ব্যাটাররা।

অভিষিক্ত রহমানউল্লাহ গুরবাজ ভালো শুরু এনে দিয়েছিলেন দলকে। যে ভিতের ওপর দাঁড়িয়ে হাত খুলে খেললেন নাজিবুল্লাহ জাদরান। ঝড় তুললেন মিরপুরে। সঙ্গে অভিজ্ঞ মোহাম্মদ নবীর ব্যাটিং। সব মিলে টস হেরে আগে ব্যাট করে জিম্বাবুয়েকে পাহাড় রানের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিল আফগানিস্তান।

অভিষিক্ত উইকেটরক্ষক রহমানউল্লাহ ২৪ বলে ৪৩ রানে ফিরেছিলেন জিম্বাবুয়ের বোলারদের দ্বিতীয় শিকার হয়ে। তার আগে হজরতউল্লাহ জাজাই ফেরেন ১৩ রানে। নাজিব তারাকাই (১৪), আসগর আফগানও (১৪) নিজেদের ইনিংস বড় করতে পারেননি। তবে নাজিবুল্লাহ জাদরান ও মোহাম্মদ নবী ঝড় বইলে দিলেন জিম্বাবুইয়ান বোলারদের ওপর।

ইনিংসের শেষ বলে নবী আউট হন। তার আগে এই জুটি যোগ করে ১০৭ রান। দুজন মিলে মেরেছেন ১০ ছক্কা। যার মধ্যে আছে টানা সাত বলে ৭ ছক্কাও। ১৭তম ওভারে তেন্দাই চাতারাকে পরপর চারটি ছক্কা হাঁকান নবী। এরপর ১৮তম ওভারের প্রথম তিন বলে মাদজিভাকে টানা তিন ছক্কা হাঁকান নাজিবুল্লাহ জাদরান।

সব মিলে ৬ ছক্কা ও ৫ চারে ৩০ বলে অপরাজিত ৬৯ রানের ইনিংস খেলেন নাজিবুল্লাহ। টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে যা তার সর্বোচ্চ। আর ১৮ বলে ৪ ছক্কায় ৩৮ রান করেন মোহাম্মদ নবী। জিম্বাবুয়ের পক্ষে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন চাতারা ও উইলিয়ামস।

জবাব দিতে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় জিম্বাবুয়ে। হ্যামিল্টন মাসাকাদজা মাত্র ৩ রানে ফেরেন। আরেক অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন টেইলর ভালো খেলতে খেলতে বিদায় নেন ব্যক্তিগত ২৭ রানে। ১৬ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান তিনি। এরপর ক্রেইগ আরভিন (১০), শন উইলিয়ামসকে (০) দ্রুত ফেরায় আফগানরা। ৪৪ রানে ৪ উইকেটে হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় জিম্বাবুয়ে।

রেগিস চাকাভা অন্যদের ব্যর্থতার মাঝে ভিন্ন ছিলেন। তবে তার ২২ বলে অপরাজিত ৪২ রান শুধু জিম্বাবুয়ের হারের ব্যবধান কমিয়েছেন। শেষ দিকে তাকে কিছুটা সঙ্গ দিয়েছেন নেভিল মাদজিভা ও কাইল জার্ভিস। প্রথমজন ১৫ রানে ফেরেন। দ্বিতীয়জন অপরাজিত ছিলেন ১৫ রানে। মাঝে মাতুমবদজি ২০ ও বার্ল ২৫ রান করেন। আফগানদের পক্ষে ২টি করে উইকেট নেন ফরিদ আহমেদ ও রশিদ খান। ম্যাচসেরা হয়েছেন নাজিবুল্লাহ জাদরান।

সর্বশেষ সংবাদ