পরিবর্তন মানে বাদ দেয়া নয় – কাদের

প্রকাশিত: ৪:১২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৫, ২০১৯

পরিবর্তন মানে বাদ দেয়া নয় – কাদের

 প্রভাতবেলা প্রতিবেদক: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের নিজের বক্তব্যের শুরুতেই সিলেটি ভাষায় জিজ্ঞেস করেন ‘আফনারা ভালানি’। তখন উপস্থিত সবাই ‘ভালা’ বললে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপিও ‘ভালা আছেন’ জানিয়ে বলেন, আওয়ামী লীগ করতে হলে ত্যাগ-তিতীক্ষা করতে হবে। স্লোগান দিয়ে নেতা হওয়া যাবে না। আর যারা মনোনয়ন বাণিজ্য করেন তারা সাবধান হয়ে যান। কারণ দেশে চলমান শুদ্ধি অভিযান চলছে। সেই অভিযানের মাধ্যমে সবাইকে ধরা হবে। একই সাথে মনোনয়ন বাণিজ্য চিরতরে বন্ধ করতে হবে।

সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়ে বলেন, পরিবর্তন মানে বাদ দেয়া নয়। পরিবর্তন মানে নেতৃত্বের বদল, এজন্য সম্মেলন হয়। সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে নবীনের সাথে প্রবীণের মিলন ঘটে, এটাই নিয়ম।

বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) বেলা তিনটায় সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এ কথাগুলো বলেন।

এসময় তিনি বলেন, এখন নেতার অভাব নাই, অথচ ব্যানার লাগাতে টুকাই লাগে। সব দিকে কেবল ব্যানার ফেস্টুনের ছড়াছড়ি। সামনে একমুখ ব্যানারে অন্যমুখ। তাই মনে রাখবেন ব্যানার লাগিয়ে নেতা হওয়া যায় না।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন বাংলাদেশকে বাঁচাতে হলে আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে, মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে হলে আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে, গণতন্ত্রকে বাঁচাতে হলেও আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে।

এসময় তিন প্রার্থীদের তালিকা উল্লেখ করেন। তালিকা অনুযায়ী, জেলার সভাপতি ৭ জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ৯ জন। অপরদিকে মহানগরে সভাপতি পদে ৪ জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ১২ জন প্রার্থীর নাম উল্লেখ করেন।

পরে তাদেরকে ২০ মিনিট সময়ের মধ্যে জেলা ও মহানগরের প্রতিটি পদের বিপরীতে দুজন করে প্রার্থী হবার জন্য বলেন। তা না হলে কেন্দ্রের সাথে যোগাযোগ করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমানের সভাপতিত্বে ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরীর পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্যে রাখেন- আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান।

এর আগে সকাল ১১ টায় সম্মেলন শুরু হবার কথা থাকলে প্রায় ঘণ্টাখানেক পর দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যে দিয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি। এসময় তিনি শান্তির প্রতীক পায়রা ও বেলুন উড়ান।

পরে কোরআন তেলাওয়াত, গীতা, বাইবেল ও ত্রিপিঠকও পাঠের মাধ্যমে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত আছেন- আওয়ামী যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, আব্দুর রহমান, প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, কেন্দ্রীয় সদস্য সুজিত রায় নন্দী, অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ