আইডিয়ালে ওড়না নিষিদ্ধ, যা বললেন অধ্যক্ষ

প্রকাশিত: ৮:৩৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৬, ২০২০

আইডিয়ালে ওড়না নিষিদ্ধ, যা বললেন অধ্যক্ষ

 

প্রভাতবেলা ডেস্ক:

রাজধানীর ঐতিহ্যবাহী মতিঝিল স্কুল এন্ড কলেজে ছাত্রীদের ওড়না বা হিজাব নিষিদ্ধ নয় বরং ক্রস বেল্টের বাইরে অতিরিক্ত ওড়না নিয়ে স্কুলে আসা যাবে না- এমন নির্দেশনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।

 

 

এমন নিষেধাজ্ঞায় জনমনে আলোচনা ও সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। অনেকেই মনে করছেন, গভর্নিং বডির সদস্য ও শিক্ষকদের এমন সিদ্ধান্তে শুধু ইসলামের অবমাননাই হচ্ছে না স্কুল দুটিও হারাচ্ছে তাদের ঐতিহ্য।

 

 

এক অভিভাবকের দেয়া ফেসবুক স্ট্যাটাসে প্রথমে এমন খবরটি জানা যায়। স্কুলে ছাত্রীদের ওড়না নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত হলে তিনি এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে ফেসবুকে লেখালেখি শুরু করেন। এছাড়া তার লেখনিতে উঠে আসে গভর্নিং বডির সদস্যদের দুর্নীতির বিভিন্ন দিক।

 

 

আগে এই স্কুলের পোশাক ছিল মেয়েদের ফ্রকের মতো গোল ঘেরা জামা, সেলোয়ার, হিজাব অথবা ওড়না। আর ছেলেদের পোশাক ছিল শার্ট প্যান্টের সাথে সাদা টুপি। দীর্ঘদিন ধরে এই ড্রেসের ঐতিহ্য বহন করে আসছিল ছাত্র-ছাত্রীরা। তবে কিছু শিক্ষকের চক্রান্তে সবই এবার হারিয়ে যাচ্ছে।

 

 

এ বিষয়ে মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ শাহান আরা গণমাধ্যমকে বলেছেন, ছাত্রীদের ওড়না বা হিজাব নিষিদ্ধ হয়নি। কেউ যদি ক্রস বেল্টের পরিবর্তে ওড়না পরতে চায় তাহলে তাকে হিজাব পরতে হবে। এর বাইরে অতিরিক্ত ওড়না সাথে নিয়ে স্কুলে আসতে পারবেন না।

 

 

শাহান আরা বলেন, অনেকে বিষয়টি না বুঝে এক প্রকার গুজব ছড়াচ্ছে। ক্রস বেল্টের বাইরে মেয়েরা ওড়না পরিধান করত না। তারা সেটি পেঁচিয়ে রাখত। এই পেঁচিয়ে রাখা ওড়নাটিই শিক্ষার্থীদের পরতে বারণ করা হয়েছে। এটার পরিবর্তে তাদের হিজাব পরতে বলা হয়েছে।

 

 

এর মাধ্যমে তাদের মাথাও ঢাকা থাকবে এবং শরীরও ঢাকা থাকবে। আর হিজাব কিংবা ক্রস বেল্টের মধ্যে যে কোন একটি শিক্ষার্থীদের ইচ্ছার উপর ছেড়ে দেয়া হয়েছে। যার যেটি পছন্দ তাই পরিধান করবে।

 

 

তিনি বলেন, মেয়েদের ওড়না পরতে নিষেধ করার বিষয়টি সঠিক না। প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে ছয় ফিট চওড়া ওড়না পরতে বলা হয়েছে, যেটি হিজাব আকারে শিক্ষার্থীরা পরিধান করে থাকে। অনেক শিক্ষার্থী হিজাবের সাথে অতিরিক্ত ওড়না নিয়ে আসে তাদের সেটি পরতে বারণ করা হয়েছে।

 

 

গত বছরই বিষয়টি শিক্ষার্থীদের জানানো হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, গত বছরের জুলাই মাসে এটি নোটিশ আকারে প্রকাশ করা হয়েছে। নোটিশে শিক্ষার্থীদের ড্রেস কোডের মধ্যে ক্রস বেল্ট এবং ৬ফিট চওড়া ওড়নার কথা বলা হয়েছে। এটি সম্পূর্ণ মেয়েদের ইচ্ছা, কে কোনটি পরবে। তবে কেউ ক্রস বেল্ট কিংবা হিজাবের সাথে অতিরিক্ত ওড়না পরতে পারবে না।

 

 

এদিকে,৭ জানুয়ারিতেও মেয়েরা ওড়না পরে মাঠে প্যারেড করেছে। শিক্ষকরা সেই ছবি তুলে সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারও করেছেন।

 

 

প্রভাতবেলা/এমএ

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ