এনামের সাহসী উচ্চারণ|| বর্ণচোরাদের মুখোশ উন্মোচন

প্রকাশিত: ৪:৪৫ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৬, ২০২২

এনামের সাহসী উচ্চারণ|| বর্ণচোরাদের মুখোশ উন্মোচন
বৃটেন প্রবাসী সময়ের সাহসী কলম সৈনিক মু.এনামুল হক । সাহসী প্রত্যয়ে সত্য উপস্থাপন করে চলেছেন নিরন্তর। সম্প্রতি তাঁর টাইমলাইনে করেছেন কিছু সাহসী উচ্চারণ। করেছেনে বর্ণচোরাদের মুখোশ উন্মোচন। আমরা এই সব সাহসী সন্তানদের অভিভাদন জানাই। কেননা প্রভাতবেলা সত্যের সপক্ষে প্রতিদিন- এ বিশ্বাসকেই শ্লোগান করে পথ চলছে। এনামুল হকের সেই লেখাটি প্রভাতবেলা  পাঠকদের জ্ঞাতার্থে প্রকাশ করা হলো- সম্পাদক ⌉
মুখোশ পরে বেশিদিন থাকা যায় না। সাংবাদিকতা আমরাও করেছি। শুধু করিনি দাবড়িয়ে করেছি। কিন্তু মুখোশ পরে করিনি। সাংবাদিকতার প্রয়োজনে যতটুকু সৌজন্যতা রাখার দরকার ততটুকু করেছি। সাদাকে সাদা বলেছি কালোকে কালোই বলেছি।
যে আদর্শ বুকে ধারন করেছি সেই আদর্শের পক্ষে উচ্চ কন্ঠে কথা বলেছি সাহসের সাথে সত্য ও সুন্দরের পক্ষে কলম চালিয়েছি। নিজের স্বার্থের জন্য দিনে আওয়ামীলীগ রাতে জামায়াত সাজতে পারিনি।
তুমি ছিলে জাউয়া বাজার ডিগ্রী কলেজের শিবিরের সভাপতি। শিবিরের সাথী থাকা অবস্থায় নৈতিক স্খলনের দায়ে শিবির থেকে বহিষ্কার হয়ে অনেক অন্ধকার পথে পা বাড়িয়েছিল।
সিলেট শহরে একজন ‘কবি’র বাসায় লজিং, ‘মহানুভব সাংবাদিক তৈরির মেশিন’ সেলিম আউয়ালর মাধ্যমে লেখালেখি শিখে কবির সুপারিশে পত্রিকায় চাকরি।
এরপর থেকেই খোলস পাল্টে নব্য আওয়ামীলীগ সাজার প্রাণপন চেষ্টা। এক এমপির জুতা বহন থেকে শুরু করে নিউজ এজেন্ট সুবিধা আদায় দিনে আওয়ামীলীগ রাতে জামায়াতের সাথে অতীতের আদর্শিক চেতনার নবায়ন, কৌশল হেকমত বলে চালিয়ে প্রেসক্লাব নির্বাচনে আদর্শিক ভোট টানা। চতুরতার আর শেষ কোথায়?
এখন সব ফেলে পুরোদস্তুর আওয়ামীলীগ! এখন এসেছে ‘বেষ্ট’ আর ‘বেহেসত’ এর উচ্চারণ আর কুটনৈতিক শব্দ চয়ন শেখাতে?
যেসব ভন্ড প্রতারক চামচা দালাল তার চেহারা যতই লেবদালুবদা আর ফর্সা হোক না কেন এরাই সমাজের কীট পতঙ্গের মতো সমাজ বিনষ্ট কারী।
‘ওলে বাবালে মনে অর তাইন তারা হুদ্ধর আওয়ামীলীগ একেবারেই আওয়ামীলীগ। অলা আওয়ামীলীগ সাজা সাজছনি?’
দালালরা সাংবাদিকতা ছাড়ো
সাংবাদিকরা দালালি ছাড়ো।
মু. এনামুল হক, প্রবাসী সাংবাদিক, লেখক।
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ