পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পরাধীনতামূলক বক্তব্যে সিলেটবাসী লজ্জিত|| ড. এনাম চৌধুরী

প্রকাশিত: ৪:১০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২১, ২০২২

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পরাধীনতামূলক বক্তব্যে সিলেটবাসী লজ্জিত|| ড. এনাম চৌধুরী

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পরাধীনতামূলক বক্তব্যে সিলেটবাসী লজ্জিত ও বিস্মিত: ড. এনামুল হক চৌধুরী।

সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন কর্তৃক ‘ভারতে গিয়ে বর্তমান সরকারকে টিকিয়ে রাখতে যা যা করা দরকার, তাই করার জন্য ভারত সরকারকে অনুরোধ করেছেন’ মর্মে দেয়া নির্লজ্জ বক্তব্যে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও বিএনপির কেন্দ্রীয় ফরেন এ্যাফেয়ার্স কমিটির সদস্য ড. মোহাম্মদ এনামুল হক চৌধুরী।

 

ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে রেফারেন্ডমের মাধ্যমে স্বাধীন চেতা ও মহান মুক্তিযুদ্ধে গৌরবোজ্জল ভুমিকা পালনকারী সিলেটের সন্তান হয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন নতজানু ও পরাধীনতামূলক বক্তব্য সিলেটবাসীকে লজ্জিত করেছে বলেও মনে করেন তিনি। এই সময়ে সিলেটের সন্তান মরহুম এম সাইফুর রহমান, মরহুম আব্দুস সামাদ আজাদ ও মরহুম হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীর নেতৃত্বের শূন্যতা সিলেটবাসী তীব্রভাবে অনুভব করছে।

 

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, সিলেট হচ্ছে হযরত শাহজালাল (র.), শাহপরান (র.) ও ৩৬০ আউলিয়ার স্মৃতিবিজড়িত পূণ্যভুমি। জাতীয় রাজনীতিতে সিলেটের অনেক কৃতি সন্তান অগ্রনী ভুমিকা পালন করেছেন এবং সিলেটের সুনাম বিশ^ময় ছড়িয়ে দিয়েছেন। কিন্তু সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত বিষয়ে সাম্প্রতিক মন্তব্যে বিশে^ সিলেটের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছে। সরকারের একজন দায়িত্বশীল ব্যক্তির এমন বক্তব্য দেশের আভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে প্রতিবেশী দেশের নগ্ন হস্থক্ষেপের বহিঃপ্রকাশ। তার বক্তব্য বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব ও সংবিধান পরিপন্থী। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এ বক্তব্য বাংলাদেশের জনগণের সাথে ধৃষ্টতা প্রদর্শনের শামিল। অতীতে সিলেটের কৃতি সন্তান আওয়ামী লীগ থেকে মরহুম আব্দুস সামাদ আজাদ ও মরহুম হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীর মতো বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব অত্যন্ত সুনামের সাথে পালন করেছেন। তাদের কারণে সিলেটবাসী আজো গর্ববোধ করে। কিন্তু বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঠিক তাদের উল্টোপথে হাটঁছেন।

 

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে কারা সরকারে থাকবে, থাকবে না, তা নির্ধারণ করবে দেশের জনগণ। কাউকে সরকারে বসানোর কোনো এখতিয়ার বাংলাদেশের জনগণ অন্য কোনো দেশকে দেয়নি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ‘বর্তমান সরকারকে ক্ষমতায় রাখার জন্য ভারতকে যে অনুরোধ করেছেন’ তা সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতির বহিঃপ্রকাশ। এতে বাংলাদেশের জনগণকে চরমভাবে অবজ্ঞা করা হয়েছে। তার এ বক্তব্য দেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি মারাত্মক আঘাত। কোনো মন্ত্রী তো দূরের কথা, দেশের একজন নাগরিকও ভিন্ন কোনো দেশকে বাংলাদেশের সরকারে কাউকে রাখার অনুরোধ জানাতে পারে না।

 

আমি সিলেটের একজন সন্তান হিসেবে, সিলেটের একটি ঐতিহ্যবাহী পরিবারের সন্তান হয়েও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ