ফুটবল রেখে পায়ে চাপ বনাম অন্যের স্ত্রী’কে আংটি দান

প্রকাশিত: ৪:২৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২০, ২০২০

ফুটবল রেখে পায়ে চাপ বনাম অন্যের স্ত্রী’কে আংটি দান

ফুটবল রেখে পায়ে চাপ বনাম অন্যের স্ত্রী’কে আংটি দান। আড়ালে মজা লুটের মতলব, অনৈতিক সম্পর্ক। হাবিবুর রহমান মিছবাহ ‘র ওয়াইজ ও শিল্পী পরিচয়ের বাইরে ‘কামিনীকাতর’ কিংবা ‘রমনী বল্লভ’ পরিচয়টাও ফুটে উঠে।

শাহিদ হাতিমী ♦ ছবিতে ওয়াইজ ও শিল্পী হাবিবুর রহমান মিছবাহ এবং আমি শাহিদ হাতিমী ফুটবল খেলছি! হ্যা এটি ২০১৮ সালের নিরেট বাস্তব একটি পিকচার।

 

এইযে খেলা, আমরা খেলছি বিনোদনের জন্য। কিন্তু মিছবাহ ভাইকে যখন আমি পাশকেটে আক্রমণভাগে বল নিয়ে ছুটতে চেয়েছিলাম, ঠিক তখনই তিনি ফুটবল রেখে আমার পা চেপে বসলেন। আরো লক্ষ্য করে দেখুন, আমার দৃষ্টি ফুটবলের দিকে থাকলেও মিছবাহ সাহেবের দৃষ্টিটা একদম আমার পায়ের দিকে, যেটা তিনি চেপে ধরেছেন! সেদিন থেকেই আমার জানা হয়েগেছে, চরমোনাইপন্তী ওয়াইজ মিছবাহ সাহেবের আসল চেহারা।

 

 

বিনোদনের খেলাধূলায় তাঁর অনাধিকার চর্চা এবং অনিয়মের পারঙ্গমতা আমাদেরকে অবাক করেছে। গত কয়েকদিন যা শোনালাম, দেখলাম এবং জানলাম তাতে উসামা মুহাম্মাদকেই সত্য ও সঠিক মনে হচ্ছে।

 

বিশেষত নাঈমা নামের ২সন্তানের জননী মহিলাটাকে তিনি একটি দামী আংটি দিয়েছেন এবং নাঈমার স্বামীকে বলেছেন লাখটাকা তাঁর কাছে কিছুই না! কিন্তু ঘটনা কি এইখানে শেষ? না, এরপর এগুলো ভার্চুয়ালে ভাইরাল হলে তিনি নাঈমাকে উঠিয়ে নিয়ে আত্মগোপন করে ফেলেন।

 

কথা হলো গাইরে মাহরাম মিছবাহ হুজুর আরেকজনের স্ত্রীকে আংটি দেয়ার বৈধতা কোথায় পেলেন? কথা এইটা না, আসল কথা হলো ফুটবল রেখে পায়ে চাপ দেয়ার দৃষ্টান্ত যার আছে, নিশ্চয় তিনি আংটি দেয়ার আড়ালে অনৈতিক সম্পর্কে মজেছেন এবং মজা লুটেন!

 

স্বামী যখন কেঁদেকেঁদে সব বলছিল, ঠিক তখন আমরা দেখতে পাই নাঈমা তাঁর স্বামীকে দেয়া তালাকনামাটিও ফেসবুকে ভাইরাল হচ্ছে এবং এটা প্রসঙ্গে হাবিবুর রহমান মিছবাহ বলেন আমি তাঁকে অনেকবার বুঝিয়েছি! তাহলে আরো পরিষ্কার হয়ে গেল যে, অনেকদিন থেকে অনেকবার নাঈমা নামক মহিলার সাথে মিছবাহ হুজুরের কীর্তনখেলা অর্থাৎ দেখাসাক্ষাৎ  চলেছে…! আস্তাগফিরুল্লাহ।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 4
    Shares

সর্বশেষ সংবাদ