মা পজেটিভ, শিশু নেগেটিভ

প্রকাশিত: ১:৩৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০২০

মা পজেটিভ, শিশু নেগেটিভ

মা এইচআইভি পজেটিভ হলে শিশুও পজেটিভ হবে, এখন এই ধারণা পুরোপুরি ঠিক নয়। চিকিৎসকরা বলছেন, সঠিক সময়ে যথাযথ চিকিৎসা নিলে স্বাভাবিক শিশু পৃথিবীর আলো দেখবে। এমন উদাহরণও অনেক। শুধু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়েই ২০১৩ সাল থেকে ২৩ নভেম্বর পর্যন্ত ১শ’ ২ জন এইচআইভি আক্রান্ত মা ভর্তি হয়। এর মধ্যে ৮০ জন শিশুর এইচআইভি পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে। 

 

 

এইচআইভি সংক্রমণ মানুষের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা নষ্ট করে দেয়। এর প্রভাবে সৃষ্ট রোগের নাম ‘এইডস’। তবে এটি ছোঁয়াচে নয়। তবে, রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা ভেঙ্গে যায় বলে ক্যান্সারসহ নানা জীবনঘাতী রোগ বাসা বাঁধে মানব শরীরে।

 

 

কোন নারী আক্রান্ত হলে নিশ্চিতভাবেই আক্রান্ত হয় তার গর্ভের শিশুও। এটা সনাতন ধারণা। বর্তমান চিকিৎসা বিজ্ঞান বলছে, সময় মতো চিকিৎসা শুরু হলে মাতৃগর্ভের শিশুকে এইডস মুক্ত রাখা অসম্ভব নয়, জানান বিএএমএমইউ-এর এই চিকিৎসক।

 

 

বিএসএমএমইউ পিএমটিসিটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডা. মেরিনা আখতার প্রভাতবেলা’কে বলেন, যত দ্রুত সম্ভব গর্ভাবস্থায় এই রোগের ওষুধ সঠিক নিয়মে যদি মাদেরকে খাওয়াতে পারি এবং নিয়মিত চেকআপে নিয়ে আসতে পারি, সেভ ডেলিভারি আমরা যদি এনসিওর করতে পারি তাহলে এই সংক্রমণটা কমানো সম্ভব।

 

 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজের তথ্য মতে, মা এইডস আক্রান্ত হলেও, গত ৭ বছরে ৮০টি নবজাতক পৃথিবীর আলো দেখেছে এইডসমুক্ত হয়ে। পরীক্ষার অপেক্ষায় আছে ৮ জন। এছাড়া সন্তান প্রসবের অপেক্ষায় আছে আরও কয়েকজন এইচআইভি পজিটিভ নারী।

 

ডা. মেরিনা আখতার আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ১শ’ ২ জন গর্ভবতী মাকে আমরা পিএমসিটি সেবাটা দিতে পেরেছি। তার মধ্যে প্রায় ৮৮ জন সুস্থ সন্তান প্রসব করেছে। ৮০ জন বাচ্চার মধ্যে এই পরীক্ষাটা করাতে পেরেছি, তারা সবাই নেগেটিভ। আর বাকী যারা তারা পজিটিভ না, তারা এই টেস্টের অপেক্ষায় আছে।

 

কিছুদিনের মধ্যেই এইডস আক্রান্ত মায়েদের সব শিশু এইচআইভিমুক্ত হয়ে জন্ম নেবে, এমন আশা করছেন চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ