সিলেটে শ্রেষ্ঠ “জয়িতা ” সম্মাননা

প্রকাশিত: ৪:৫১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২০

সিলেটে  শ্রেষ্ঠ “জয়িতা ” সম্মাননা

প্রভাতবেলা প্রতিবেদক:

সিলেটে বিভাগীয় পর্যায়ে ৫ নারীকে পাঁচটি ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠ জয়িতার সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০ টায় সিলেট নগরীর রিকাবীবাজারস্থ কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

 

মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ও বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়, সিলেটের আয়োজনে সম্মাননা প্রদান করা হয় ।

 

শ্রেষ্ঠ জয়িতারা হলেন- সিলেটের মিনারা বেগম, মৌলভীবাজারের নাজমীন আক্তার, সিলেটের শামসুন্নাহার চৌধুরী, কানাইঘাট উপজেলার নিজ চাউরা দক্ষিণ গ্রামের মৃত সিরাজ উদ্দিনের স্ত্রী সালেহা বেগম এবং সিলেটের আছিয়া খানম শিকদার। এছাড়াও এই পাঁচ ক্যাটাগরিতে নির্বাচিত ৪ জেলায় ১৫ জন জয়িতাকে দেয়া হয়েছে বিশেষ সংবর্ধনা।

 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা এমপি।

 

প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, ‘নারীর উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিভিন্ন পদক্ষেপ সারা বিশ্বে প্রশংসিত হচ্ছে। জয়িতা’দের সম্মাননার মাধ্যমে এদেশের নারী জাগরণে নতুন মাত্রা যোগ করেছে সরকার।’

 

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘সমতাভিত্তিক সমাজ ব্যবস্থায় বাংলাদেশের অবস্থান পঞ্চম, যেখানে ভারতের অবস্থান ১১২ তম। নারীর ক্ষমতায়ন, মানুষের গড় আয়ু বৃদ্ধি, শিশুমৃত্যু- মাতৃমৃত্যু রোধে, সামাজিক নিরাপত্তা বৃদ্ধিসহ তৃনমুল জনগণের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জনে বাংলাদেশ বিশ্বে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে।’

 

সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মো. মশিউর রহমান, এনডিসির সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী রওশন আক্তার, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক পারভীন আক্তার, মহিলা আসনের সংসদ সদস্য শামীমা আক্তার খানম, সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিনসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

 

পরে প্রধান অতিথি মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা এমপির হাত থেকে শ্রেষ্ঠ ৫ জয়িতারা তাদের সম্মাননা ক্রেস্ট গ্রহণ করেন। এর পরে সিলেট বিভাগের চার জেলার নির্বাচিত জয়িতারা তাদের সম্মাননা গ্রহণ করেন।

 

সম্মাননা পাওয়া  বাকী জয়িতারা হলেন,

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. নাসরিন সুলতানা লাকি, দোয়ারাবাজার উপজেলার নতুন কৃঞ্চনগর গ্রামের জমির আহমদের স্ত্রী ছালেহা বেগম, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার অনামিকা গ্রামের রেজাউল হক মিন্টুর স্ত্রী সামিনা চৌধুরী মনি, দোয়ারাবাজার উপজেলার দেওরা বাজার গ্রামের মনোরঞ্জন দে’র মেয়ে স্বর্ণালী দে, বিশ্বম্বরপুর উপজেলার ভাটিপাড়া গ্রামের গোপেশ চৌধুরীর মেয়ে ছায়া রাণী চৌধুরী এবং বিশ্বম্ভরপুর গ্রামের মাঝাইর গ্রামের সুরেশ রঞ্জন দাসের স্ত্রী রানী দাস। লাখাই উপজেলার বামৈ গ্রামের মাসুদ মিয়ার স্ত্রী সেলিনা আক্তার, হবিগঞ্জ পৌরসভা এলাকার শেখ শাহেদুজ্জামানের স্ত্রী শেখ সুমা জামান, মাধবপুরের মোদকপট্টি গ্রামের মদন গোপাল মোদকের মেয়ে শিল্পি রানী মোদক, বাহুবল উপজেলার স্বর্ণরেখ গ্রামের জালাল উদ্দিনের মেয়ে মোছা. সাহিদা আক্তার রেজিয়া এবং লাখাই উপজেলার কালাউক গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল আলমের স্ত্রী নুরুন্নাহার বেগম। কুলাউড়া উপজেলার নন্দনগর গ্রামের মৃত নুরুল ইলামের মেয়ে রওশন আরা বেগম, কমলগঞ্জ উপজেলার গোপালনগর গ্রামের আব্দুল মান্নানের মেয়ে রুমানা আক্তর রুবি, কুলাউড়া উপজেলার সিংগপুর গ্রামের মো. জাফর মিয়ার মেয়ে হাজেরা আক্তার এবং শ্রীমঙ্গল উপজেলার শান্তিবাগ আবাসিক এলাকার রুক্ষ্মিনী কান্ত দত্তের মেয়ে রীতা দত্ত।

 

প্রভাতবেলা/এমএ

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ