হেফাজত নিষিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত মাঠে থাকবে আহলে সুন্নাত

প্রকাশিত: ৩:০৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৬, ২০২১

হেফাজত নিষিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত মাঠে থাকবে আহলে সুন্নাত

প্রভাতবেলা ডেস্ক:

ধর্মীয় ও রাজনৈতিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি, জঙ্গিবাদ ও রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ড পরিচালনার অভিযোগ করে হেফাজতে ইসলামকে নিষিদ্ধের দাবি জানিয়ে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত নেতারা বলেছেন, ভ্রান্ত আক্বিদার সংগঠন হেফাজত ইসলাম শান্তির ধর্ম ইসলাম, দেশ ও মুসলিম মিল্লাতের জন্য হুমকি। তাদের এখনই নিষিদ্ধ করতে হবে। হেফাজত নিষিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত আহলে সুন্নাত শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি নিয়ে মাঠে থাকবে।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনি হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের নির্বাহী মহাসচিব মাওলানা আ ন ম মাসউদ হোসাইন আল কাদেরী এ কথা বলেন। এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক এ মোমেন, অধ্যক্ষ আল্লামা আবু জাফর মো. হেলাল উদ্দিন, সাংগঠনিক সচিব মো. আব্দুল মতিন, দপ্তর সচিব এম ফিরোজ আলম প্রমুখ।

আ ন ম মাসউদ হোসাইন বলেন, মহানবী (সা.) এর ঘোষিত ইসলামের ভ্রান্ত আকিদার একটি হলো হেফাজত। তাদের ইমান বিধ্বংসী আকিদার বিরুদ্ধে প্রশাসনের উপস্থিতিতে আহলে সুন্নাত একাধিকবার প্রকাশ্য বাহাসের চ্যালেঞ্জ জানালেও তারা কখনও গ্রহণ করেনি। আমরাই প্রমাণ করে দেবো তারা ভ্রান্ত আকিদার জঙ্গি সংগঠন। গণমাধ্যমের মাধ্যমে আমরা আবারও তাদের বাহাসের চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছি।

সরকারকে দুধ কলা দিয়ে সাপ না পোষার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ইসলাম হেফাজতের নামে ২০১৩ সালে সরকার ফেলে দেওয়ার জন্য লংমার্চ করে হেফাজত। তখন বেকায়দায় পড়ে সরকারের সঙ্গে তারা সমঝোতা করে মাস্টার্সের স্বীকৃতি আদায় করে নেয়। এখন সুযোগ পেয়ে আবার মাথাছাড়া দিয়ে উঠেছে এবং সরকারকেই ছোবল মারছে। তাই তাদের এখনই নির্মূল করা না গেলে ভবিষ্যতে তারা আপনাদেরকে নির্মূল করে দেবে।

৫৬০টি মডেল মসজিদে হেফাজতপন্থী আলেম নিয়োগ না দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে মাওলানা মাসউদ বলেন, বায়তুল মোকাররমের খতিব ছাড়া বাকি সব ইমামই ওহাবী হেফাজতি। তাদের দ্রুত অপসারণ করতে হবে। ৫৬০ মডেল মসজিদে সুফিবাদী সুন্নি আলেম নিয়োগ করতে হবে।

কওমি মাদ্রাসায় জাতীয় সংগীত হয় না, জাতীয় পতাকা উড়ানো হয় না অভিযোগ করে মাস্টার্সের সমমান প্রত্যাহার করে এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে সরকারি আলিয়ার নেসাবভুক্ত করে পূর্ণ সরকারি নিয়ন্ত্রণের দাবি জানান তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে আহলে সুন্নাতের যুগ্ম মহাসচিব এম এম মোমেন বলেন, ইসলামে মানবিক বিয়ের অস্থিত্ব নেই। চুক্তিভিত্তিক বিয়ে ইসলামে হারাম। তারপরও এই নেতার বিরুদ্ধে হেফাজত কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

তিনি বলেন, ইমান-ইসলামের হেফাজতের কথা বলে তারা দেশ ও ধর্মের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। যেখানে তাদের নেতা মাওলানা আহমদ শফী নিরাপদ নয় সেখানে তাদের হাতে দেশ জাতি ও মুসলিম মিল্লাত কিভাবে নিরাপদ হবে?

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আহলে সুন্নাতের প্রেসিডিয়াম সদস্য আল্লামা আব্দুর রহমান আল কাদেরি, আল্লামা সৈয়দ ফকি মুসলিম উদ্দিন আহমদ নূরী, মাওলানা মোতাসিম বিল্লাহ রাব্বানী, মাও, তাজুল ইসলাম চাদপুরী, মাও, আলমগীর হোসেন যুক্তিবাদী, ড. মো. শাহজালাল, মাওলানা তোফায়েল আহমেদ, মাও, মাহমুদুল হাসান আনসারি, রফিকুল আজম আশরাফী, মাওলানা মোশারফ হোসেন, মো. আব্দুস সালাম সেলিম প্রমুখ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ