৬ কোটি টাকার মসজিদ, কিছু প্রশ্ন,কিছু কথা

প্রকাশিত: ৬:৪০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০২০

৬ কোটি টাকার মসজিদ, কিছু প্রশ্ন,কিছু কথা
৬কোটি টাকা ব্যয়ে দক্ষিণ সুরমা উপজেলা কমপ্লেক্সে নির্মিত হচ্ছে আধুনিক মসজিদ।
ইকবাল হাসান জাহিদ♦ ১৫ বছরে আজ প্রথম ঢুকলাম দক্ষিণ সুরমা উপজেলা পরিষদে! ২০০৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো এই উপজেলা।
আমার এনআইডি কার্ড হারিয়ে গেছে ২০১৮ সালে। ফটোকপি দিয়ে চালিয়ে দিয়েছি ২ বছর। পাসপোর্টও করেছি ফটোকপি দিয়ে। ডিজিটাল আইডি আনার জন্য আজ গিয়েছিলাম।
ছবিতে নির্মানাধীন যে ভবন দেখছেন সেটা উপজেলার ঠিক পাশেই নির্মাণ হচ্ছে। আমার সাথে ছিলেন উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ইমাদ উদ্দিন নাসিরী। তিনি বললেন এই মসজিদের বাজেট ৬ কোটি টাকা। বিশাল বাজেটের এই মসজিদ অনেকটা বায়তুল মুকাররম মসজিদের অনুরুপ নকশায়। সেমিনার হলসহ আধুনিক ডিজাইন আর বৃহত্তম আকারের এই মসজিদটি দক্ষিণ সুরমাবাসির জন্য খুশির সংবাদ বটে।
কিন্তু প্রশ্ন অন্য জায়গায়, যে মসজিদ নির্মাণ হচ্ছে তাতে শুক্রবারের জুমায় কতজন মানুষ হবেন। আমার ধারণা সর্বোচ্চ ১শ জন হবেন। অথচ এই মসজিদের ধারণক্ষমতা হাজাররের উপরে।
পাশের গ্রামের মানুষ তাদের নিজেদের মসজিদ ছেড়ে এই মসজিদে জুম্মা পড়বেন কি না আমার জানা নাই। না পড়লে এই মসজিদের স্থায়ী মুসল্লি কারা সেটা একটা প্রশ্ন!
আরেকটা কারণ, জুমাবারে পরিষদ বন্ধ থাকবে। রাস্তার মানুষও এই মসজিদে নামাজ পড়বে না। কারণ বেশিরভাগ যাত্রাপথের মানুষ জানবেই না ভেতরে একটা মসজিদ আছে।
 সংশ্লিষ্টরা যদি চাইতেন তাহলে ৬ কোটি টাকায় দক্ষিণ সুরমার ভাঙাচোরা ৬ টি মসজিদ পূণঃনির্মাণ করে দিতে পারতেন।
বিশেষ করে দক্ষিণ সুরমার সবচে বড় ও পরিচিত বাজার মোগলা বাজারের জামে মসজিদের যে অবস্থা, অজুখানা, প্রস্রাবখানার অবস্থা দেখলে উত্তর বঙ্গের কোনো মসজিদ মনে হয়। যা অত্র অঞ্চলের মানুষের জন্য লজ্জার। আশা করব সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলরা বিষয়টি মাথায় নেবেন।
যাইহোক, উপজেলার এই মসজিদটি সুন্দর ডিজাইনে হচ্ছে। আমাদের উপজেলায় একটি সুন্দর মসজিদ উপহার দেয়ার জন্য সরকারকে ধন্যবাদ।
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 142
    Shares

সর্বশেষ সংবাদ