৭ শর্তে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা

প্রকাশিত: ৯:৩২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২, ২০২০

৭ শর্তে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা

প্রভাতবেলা ডেস্ক:

করোনা ভাইরাস উদ্ভূত পরিস্থিতি প্রলম্বিত হওয়া এবং শিক্ষার্থীদের নিরাপদ ভবিষ্যৎ কর্মজীবনের জন্য বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ও মাস্টার্স পর্যায়ে সবশেষ সেমিস্টারের ব্যবহারিক ক্লাস-পরীক্ষা নেওয়ার ক্ষেত্রে সাত নির্দেশনা দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।

সোমবার (২ নভেম্বর) ইউজিসির বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগের পরিচালক ড. মো. ফখরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত নির্দেশনা সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারকে পাঠানো হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়, এক দিনে একটি প্রোগ্রামের একটির বেশি ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষা নেওয়া যাবে না।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের স্বাস্থ্যবিধি ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা (যেমন, বাধ্যতামূলক ফেস মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ব, ক্যাম্পাস ও ক্লাসে স্যানিটাইজার সরবরাহ নিশ্চিতকরণ ইত্যাদি) কঠোরভাবে অনুসরণ করতে হবে।

প্রতি ক্লাসে একসঙ্গে অনধিক ১০ জন শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষা সম্পন্ন শেষ হবে। শিক্ষার্থীদের ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষা শুরুর কেবল আধা ঘণ্টা আগে ক্যাম্পাসে আগমন এবং তা শেষ হওয়ার আধা ঘণ্টার মধ্যে ক্যাম্পাস থেকে প্রস্থান নিশ্চিত, সংশ্লিষ্ট কোর্সের মৌখিক পরীক্ষা অনলাইনে সম্পন্ন করা, ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষার হলে প্রতিজন শিক্ষার্থীর মধ্যে দূরত্ব থাকতে হবে ন্যূনতম ৬ ফুট, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসেও উক্ত দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষার কারণে কোনো শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করা নিজ নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্ব। এ ব্যাপারে কমিশন কোনো দায়ভার গ্রহণ করবে না।

এই নির্দেশনা শুধু অনার্স ও মাস্টার্স পর্যায়ের সবশেষ সেমিস্টারের ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষা নেওয়ার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে উল্লেখ করে চিঠিতে বলা হয়েছে।

করোনা মহামারি শুরুর পর গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়। আর এবারের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা, জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা, এইচএসসি পরীক্ষা ছাড়াও প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। উচ্চশিক্ষায স্তরেও নেমে আসে স্থবিরতা।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা নিয়ে ইউজিসির নির্দেশনায় কোভিড-১৯ উদ্ভূত পরিস্থিতি প্রলম্বিত হওয়ায় ব্যবহারিক ক্লাস এবং পরীক্ষা ও মূল্যায়ন কীভাবে সম্পন্ন করা হবে সে বিষয়ে নির্দেশনা চেয়ে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আবেদনপত্র কমিশনে পাওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়।

চিঠিতে গত ৭ মে জারি করা সাধারণ নির্দেশাবলী যথাযথ প্রতিপালন ও অনুসরণ নিশ্চিত করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

ইউজিসি জানায়, কোভিড-১৯ এর ভয়াবহতা ও উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিগত ৭ ও ২০ মে এবং ১৭ আগস্ট কমিশন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনলাইনে ক্লাস ও পরীক্ষা গ্রহণ, মূল্যায়ন এবং শিক্ষার্থী ভর্তি সংক্রান্ত বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়। নির্দেশনায় ল্যাবরেটরিভিত্তিক সব কোর্সের ব্যবহারিক ক্লাস এবং পরীক্ষা ও মূল্যায়ন করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পরপরই অতিরিক্ত সময় বরাদ্দ করে সরাসরি শ্রেণিকক্ষে সম্পন্ন করতে হবে মর্মে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 2
    Shares

সর্বশেষ সংবাদ