ছাতকে ইউএনও’র হস্তক্ষেপ, বোরোধান সংগ্রহে কৃষকদের অসম্পূর্ণ তালিকা বাতিল

প্রকাশিত: ২:১৭ অপরাহ্ণ, মে ১৪, ২০২০

ছাতকে ইউএনও’র হস্তক্ষেপ, বোরোধান সংগ্রহে কৃষকদের অসম্পূর্ণ তালিকা বাতিল

 

জুনেদ আহমদ(রুনু), প্রতিনিধি,ছাতক:

ছাতকে বোরো ধান সংগ্রহে কৃষি বিভাগ কর্তৃক প্রস্তুতকৃত প্রাথমিক কৃষক তালিকা অসম্পূর্ন এবং তালিকায় অসংগতি থাকায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে তা বাতিল করা হয়েছে ।

জানা যায়,প্রস্তুতকৃত তালিকায় প্রকৃত কৃষকের জায়গায় মধ্যস্বত্ত্বভোগীদের নাম অন্তর্ভুক্ত এবং অস্বচ্ছতা থাকায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ গোলাম কবির ক্ষুব্ধ হয়ে এ তালিকা বাতিল করে পরবর্তী দু’দিনের মধ্যে প্রকৃত কৃষকদের নাম অন্তর্ভুক্ত করে তালিকা প্রস্তুত করার নির্দেশ দেন।

এ নিয়ে মঙ্গলবার সকালে উপজেলা পরিষদ চত্বরে অনুষ্ঠিত বোরো ধান সংগ্রহে ইউনিয়ন পর্যায়ে কৃষক নির্বাচনে উন্মুক্ত লটারী অনুষ্ঠানে এক বিব্রতকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ লটারী অনুষ্ঠান বাতিল করে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন। পরে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা তৌফিক হোসেন খানের তীব্র তোপের মুখে পড়েন উপস্থিত ইউনিয়ন পর্যায়ে দায়িত্বপালনকারী উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা। এসময় কোন ব্যক্তি বা জনপ্রতিনিধির অদৃশ্য চাপ উপেক্ষা করে প্রকৃত কৃষকদের নাম, ঠিকানা, মোবাইল নাম্বারসহ প্রয়োজনীয় তথ্যাবলি সম্বলিত তালিকা প্রস্তুত করার নির্দেশ দেন।

এসময় কৃষি কর্মকর্তাকে বেশ বিচলিত হতে দেখা গেছে। প্রস্তুতকৃত অসম্পূর্ন তালিকা বাতিল করায় দু’একজন ছাড়া উপস্থিত সকলেই একজন দূর্নীতিমুক্ত, স্বচ্ছ ও স্পষ্টবাদী কর্মকর্তা হিসেবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ গোলাম কবিরকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

চলতি বোরো মৌসুমে অভ্যন্তরীণ বোরো ধান সংগ্রহে ইউনিয়ন পর্যায়ে কৃষক নির্বাচন উপলক্ষে উন্মুক্ত লটারীর আয়োজন করে উপজেলা খাদ্য শস্য সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটি।

১৩টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় দেয়া তালিকায় নির্ধারিত কৃষকের চেয়ে অনেক বেশী নাম অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় লটারীর মাধ্যমে কৃষক নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। মঙ্গবার সকালে আনুষ্ঠানিক উন্মুক্ত লটারীর আয়োজন করেন উপজেলা খাদ্য শস্য সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটির সভাপতি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ গোলাম কবির।

ইউনিয়ন পর্যায়ে দায়িত্বপালনকারী উপজেলা উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা কর্তৃক প্রস্তুতকৃত তালিকা অসম্পূর্ন থাকায় অনুষ্ঠানের শুরু থেকেই তালিকা প্রস্তুতকারীদের উপর চড়াও হন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। এক পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তালিকায় থাকা এক কৃষকের মোবাইল নাম্বারে ফোন করলে তালিকায় অসংগতির বিষয়টি এ কর্মকর্তার কাছে ধরা পরে। যে কারনে তিনি এসব তালিকা বাতিল করে প্রকৃত কৃষকদের নাম অন্তর্ভুক্ত করে তালিকা প্রস্তুত করার নির্দেশ দেন।

এসময় সহকারী কমশিনার(ভুমি) তাপস শীল, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শাহাব উদ্দিন, সমবায় কর্মকর্তা মতিউর রহমান, ছাতক থানার এসআই সৈয়দ আব্দুল মান্নান, ছাতক প্রসক্লাবের সভাপতি সৈয়দ হারুন-অর রশীদ, ইউপি চেয়ারম্যান গয়াছ আহমদ, বিল্লাল আহমদ, অদুদ আলম, আবুল হাসনাত, শায়েস্তা মিয়া, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(খাদ্য গোদাম) মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, ছাতক প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আব্দুল আলিম, অর্থ সম্পাদক বিজয় রায়সহ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন ।

 

প্রভাতবেলা/এমএ

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ