উপশহরে করোনা টিকাদান কার্যক্রমে বিশৃংখলা

প্রকাশিত: ১:৫৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৮, ২০২১

উপশহরে করোনা টিকাদান কার্যক্রমে বিশৃংখলা

সিলেট নগরীর উপশহরে করোনা টিকাদান কার্যক্রমে হযবরল অবস্থা। স্বাস্থ্যবিধির কোন তোয়াক্কা করেননি টিকা নিতে আসা নারী পুরুষ। বিশৃংখল ব্যবস্থাপনা আর অপ্রতুল স্বেচ্ছাসেবকের কারণে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন টিকা গ্রহণে সমবেত মানুষ। নির্ধারিত সময়ের দেড়ঘন্টা পর টিকাদান কার্যক্রম শুরু করে আধ ঘন্টা পর আবার স্থগিত করে দেয়া হয়। পরবর্তীতে কার্ড ছাড়াই টিকা প্রদান করা হয়।♦ প্রভাতবেলা প্রতিবেদক

সকাল পৌণে ১০ টায় দায়িত্বরত স্বেচ্ছাসেবকরা প্রভাতবেলা’কে জানান, কার্ড স্বল্পতা ও অপ্রতুল টিকা ডোজ এর কারণে তারা শুরু করতে পারছেন না। টিকা নিতে আসা নারী পুরুষের সংখ্যা ব্যাপক। সে অনুপাতে ডোজ এবং কার্ড নেই। জানান কর্মরতরা।

সিলেট সিটি করপোরেশনের ২২ নং ওয়ার্ড শাহজালাল উপশহর। এই ওয়ার্ডের তিনটি কেন্দ্রের মধ্যে আই ব্লক একাডেমী একটি কেন্দ্র। সকাল সাড়ে ৭ টা থেকেই এখানে লোকজন আসতে থাকেন। ৯ টায় টিকাদানের নির্ধারিত সময়ের আগেই নারী পুরুষের সারি একাডেমী প্রাঙ্গন ছাড়িয়ে মুল সড়কে চলে আসে।

মূলত: ২২ নং ওয়ার্ডের বাইরের লোকজনও এই কেন্দ্রে আসার ফলে ভীড় প্রচন্ড আকার ধারণ করে। এই পরিস্থিতিতে করণীয় নির্ধারণে সময় নিতে থাকেন টিকাদান কার্যক্রমে সংশ্লিষ্টরা। এক পর্যায়ে জানানো হয় শুধুমাত্র ২২ নং ওয়ার্ডের নাগরিকদের টিকা দেয়া হবে আজ। এ ঘোষণার সাথে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন উপস্থিত অনেকেই।

উপশহর আই ব্লক কেন্দ্রে টিকা নিতে আসা নারীদের দীর্ঘ সারি- প্রভাতবেলা

উপশহর আই ব্লক কেন্দ্রে টিকা নিতে আসা নারীদের দীর্ঘ সারি- প্রভাতবেলা

বিক্ষুব্ধদের কেউ কেউ স্থানীয় কাউন্সিলরের নাম ধরে গালাগালি করতে থাকেন। স্বেচ্ছাসেবক, পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের হস্তক্ষেপে পরিস্থতি এক পর্যায়ে শান্ত হয়ে আসে।

অকুস্থলে আসেন স্থানীয় কাউন্সিলর এডভোকেট সালেহ আহমদ সেলিম। তিনি ওয়ার্ডের নাগরিক ছাড়া কাউকে আজ টিকা দেয়া সম্ভব নয় ঘোষণা করেন। এতে বাইরের লোকজন চলে যান। তখন শুধুমাত্র উপশহরের নাগরিকদের টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়। তবে কার্ড ছাড়াই টিকা নেন নাগরিকরা। জাতীয় পরিচয়পত্রে একটি কপিতে সংশ্লিষ্টরা লিখে দেন “ ফার্স্ট ডোজ ডান” পরবর্তী ডোজ ৮.৯.২০২১। এতে অনেকেই অসন্তোষ প্রকাশ করেন।

ষাটোর্ধ বয়সের আব্বাস উদ্দিন বলছেন, কাউন্সিলর গতকাল বলেছেন সবাই টিকা দিতে পারবে আজ বলছেন পারবে না। তিনি কি জনগণের সাথে খেলা করছেন?

ক্ষুব্ধ এক মহিলা চিৎকার করে বলে যাচ্ছেন ‘ আর টিকা্-ই দেবনা, আর আসবোন, দিলে টাকা দিয়েই দেব”

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 21
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    21
    Shares

সর্বশেষ সংবাদ