কোন পথে হাঁটলে পরীমণির জামিন সম্ভব

প্রকাশিত: ৪:২৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৪, ২০২১

কোন পথে হাঁটলে পরীমণির জামিন সম্ভব

চিত্রনায়িকা পরীমণি সহজেই ছাড় পাচ্ছে না। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে ইঙ্গিত মিলেছে- খুব সহজে জামিন হচ্ছে না এই তার। তবে এই নায়িকার দ্রুত জামিন করাতে তার আইনজীবীরা সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। অন্যদিকে কঠোর অবস্থানে রয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। পূর্বের জামিন শুনানিতে দেখা গেছে, পরীমণীর আইনজীবীরা জামিন চাচ্ছেন, পক্ষান্তরে জামিনের কঠোর বিরোধিতা করছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী। এভাবেই তাকে গ্রেপ্তারের ১৯ দিন পার হচ্ছে।

 

 

 

মহানগর সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) আবদুল্লাহ আবু  বলেন, ‘যেহেতেু মামলাটির তদন্ত এখনও চলছে। সেই তদন্ত সম্পন্ন করে তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রতিবেদন দাখিল করবেন, সেটির উপর ভিত্তি করেই আদালত রায় দিবেন। এখানে আসামীপক্ষ জামিন চাইতেই পারে, সে প্রেক্ষিতে আদালতের এখতিয়ার রয়েছে জামিন দেয়ার বা না দেয়ার। মামলাটি যেহেতু আমাদের রাষ্ট্রপক্ষের প্রসিকিউশনভূক্ত, সেহেতু আমরা ওই অনুযায়ী দায়িত্ব পালন করবো।

 

রাষ্ট্রপক্ষের পিপি আরও বলেন, ‘পরীমণির বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় যেহেতু ভয়ঙ্কর মাদক এলএসডি এবং আইসের কথা উল্লেখ রয়েছে, সে কারণে এই আসামীর জামিন দেওয়ার বিষয়ে আদালত কঠোর থাকার কথা।’

 

 

 

এদিকে পরীমণির আইনজীবী মুজিবুর রহমান জানান, ‘যেহেতু মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ দমন আইনের দায়ের করা মামলায় এলএসডি এবং আইস পাওয়ার বিষয়টি রয়েছে। সেহেতু আমরা মনে করছি- এখান (নিম্ন আদালত) থেকে জামিন পেতে আমাদের অনেক দেরি হতে পারে। যে কারণে আমরা হায়ার কোর্টে (সেশন কোর্টে) জামিন শুনানির আবেদন জানিয়েছি। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত শুনানির জন্য আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর তারিখ ধার্য করেছেন। এটি অনেক লম্বা একটি তারিখ। আমরা পরিকল্পনা নিয়েছি- কোন পথে হাঁটলে পরীমণির দ্রুত জামিন করানো সম্ভব হবে।

 

 

 

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে করা মামলায় নায়িকা পরীমণির জামিন আবেদন করেছেন আইনজীবী। জামিন বিষয়ে শুনানির জন্য ১৩ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। আজ রোববার (২২ আগস্ট) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে তার জামিন আবেদন করেন আইনজীবী মুজিবুর রহমান। পরীমণির আইনজীবী মুজিবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

 

 

এর আগে গত শনিবার (২১ আগস্ট) মাদক মামলায় তৃতীয় দফায় রিমান্ড শেষে পরীমণিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আশেক ইমাম শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

 

 

 

তৃতীয় দফায় ১ দিনের রিমান্ড শেষে শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার পর পরীমণিকে আদালতে হাজির করে মামলার তদন্ত সংস্থা সিআইডি। এরপর তাকে আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক কাজী গোলাম মোস্তফা তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন।

 

 

 

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) পরীমণির ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম। তার আগে ১০ আগস্ট পরীমণি ও আশরাফুল ইসলাম দীপুর ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দেবব্রত বিশ্বাস। ৫ আগস্ট পরীমণি ও দীপুর ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদ।

 

 

 

মাদক মামলায় গেল ১৩ আগস্ট পরীমণি ও তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপুকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। ওই দিন সন্ধ্যায় তাকে গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হয়।

 

 

উল্লেখ্য, গেল ৪ আগস্ট পরীমণিকে তার বনানীর বাসা থেকে আটক করে র‍্যাব। অভিযানে নতুন মাদক এলএসডি, মদ ও আইস উদ্ধার করা হয় বলে দাবি করে তারা। তার ড্রয়িংরুমের কাবার্ড, শোকেস, ডাইনিংরুম এবং বেডরুমের সাইড টেবিল ও টয়লেট থেকে বিপুল মদের বোতল উদ্ধার করা হয় বলেও দাবি করা হয়। পরদিন বিকেলে পরীমণি, প্রযোজক ও অভিনেতা মো. নজরুল ইসলাম রাজ এবং তাদের দুই সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপু ও মো. সবুজ আলীকে বনানী থানায় সোপর্দ করে র‍্যাব।

 

এরপর র‍্যাব বাদী হয়ে রাজধানীর বনানী থানায় পরীমণি ও তার সহযোগী দীপুর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 356
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    356
    Shares

সর্বশেষ সংবাদ