ডারবান টেস্ট|| হারমারের ঘুর্ণিতে কাবু বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ২:২৪ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২, ২০২২

ডারবান টেস্ট|| হারমারের ঘুর্ণিতে কাবু বাংলাদেশ

সাদমানকে ফেরানোর পর হারমারের উল্লাস

সাদমানকে ফেরানোর পর হারমারের উল্লাস – ছবি: এএফপি

 

মূল পেসাররা সবাই আইপিএল খেলতে ব্যস্ত। তাই পেস আক্রমণের নেতৃত্ব দিচ্ছেন ১৩ টেস্টের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন ডুয়াইন অলিভিয়ের। তাঁর সঙ্গী অভিষিক্ত লিজাড উইলিয়ামস। অলিভিয়ের ৪ ওভার বল করার সুযোগ পেয়েছেন। অভিষিক্ত উইলিয়ামসের ভাগ্যে জুটেছে আরও ১ ওভার বেশি। সাত বছর পর টেস্ট খেলতে নামা অফ স্পিনার সাইমন হারমারকে নবম ওভারেই আক্রমণে আনা হয়েছিল। ষষ্ঠ টেস্ট খেলতে ৭ বছর অপেক্ষা করতে হয়েছে তাঁকে কিন্তু উইকেটের অপেক্ষা ৯ বলেই শেষ।

 

হারমানের বলটি গুড লেংথে পড়েছিল। কিন্তু বলটা নিচু হয়ে ছুটল। ব্যাকফুটে থাকা সাদমানের ব্যাট নামল না সময়মতো। ২৫ রানে প্রথম উইকেটের পতন। এরপর কিছুক্ষণ ওয়ানডে মেজাজে খেলেছেন নাজমুল হোসেন। কঠিন কন্ডিশনে প্রতি–আক্রমণকেই ভরসা মেনেছেন। একপর্যায়ে ১৯ বলে ১৯ রান ছিল তাঁর। স্পিনারদের বলে দুবার এগিয়ে ছক্কা মেরেছেন। তবে একপর্যায়ে খেলার ধরনটি যে টেস্ট, সেটা মনে পড়েছে তাঁর এবং বেশ চমৎকারভাবেই কেশব মহারাজ ও হারমারদের সামলেছেন। অন্য প্রান্তে সাবলীল ছিলেন মাহমুদুল হাসানও।

 

দ্বিতীয় উইকেট জুটিতেই দিন পার হবে বলে মনে হচ্ছিল। হারমারের দুটি বল তা হতে দেয়নি। ২৮তম ওভারের প্রথম বলটা স্বাভাবিক ঢঙে খেলেছিলেন নাজমুল। কিন্তু বলটা যে স্বাভাবিক ছিল না। মিডল স্টাম্পে পড়া বলা বাঁক নিয়ে বেরিয়ে গেছে। বল এতটাই ঘুরেছে যে নাজমুলের ব্যাটের স্পর্শ এড়িয়ে গেছে কিন্তু ঠিকই বেরিয়ে যাওয়ার পথে স্টাম্পের বাইরের অংশের ছোঁয়া নিয়ে গেছে। দিনের শেষ ভাগে আর মাত্র কয়েক ওভার বাকি। এমন অবস্থায় রাত পার করার জন্য নাইট ওয়াচম্যান পাঠানোর চিন্তা খুব একটা দোষের নয়।

এবার ঠেকাতে পারলেও হারমারের দারুণ বাঁক নেওয়া বল ঠেকাতে পারেননি নাজমুল

এবার ঠেকাতে পারলেও হারমারের দারুণ বাঁক নেওয়া বল ঠেকাতে পারেননি নাজমুল – ছবি: এএফপি

কিন্তু অধিনায়ক মুমিনুল হক নিজেই নামলেন এবং ৮ বল খেললেন। ওখানেই শেষ। হারমারের বলে শুরু থেকেই অস্বস্তিতে ছিলেন, বল ব্যাট-প্যাড হয়ে উঠে গেল। সিলি মিড অফে কিগান পিটারসেনের হঠাৎ ডানা গজাল। প্রায় উড়ে গিয়েই বল হাতে জমালেন। বাংলাদেশ এরপরও নাইট ওয়াচম্যান নামাল না। উইকেটে মুশফিকুর রহিম।

 

চাপের মুখে মুশফিক যেমন খেলেন, তেমনই খেলছিলেন। এক্সট্রা কাভার দিয়ে শট বের করার চেষ্টা করলেন। ১৮তম বলে স্লগ করে চারও পেলেন। ১৯তম বলেই বিদায় মুশফিকের। রাউন্ড দ্য উইকেট থেকে হারমার বল করছিলেন। সেটা খেলবেন কি খেলবেন না, মুশফিকের এই সিদ্ধান্তহীনতার মাঝেই গ্লাভসের ছোঁয়া নিয়ে বল চলে গেল। জোরালো আবেদনে সাড়া দিলেন না আম্পায়ার এরাসমাস। কিন্তু রিভিউ ঠিকই জানিয়ে দিল, মুশফিকের ইনিংস থামছে ৭ রানে।

 

হারমারের আগের ওভারেই মুশফিককে আউট দিয়েছিলেন এরাসমাস। সেবার অবশ্য রিভিউ নিয়ে জীবন পেয়েছিলেন মুশফিক। কিন্তু নতুন জীবনে মাত্র ৬ রান যোগ করতে পেরেছেন সাবেক অধিনায়ক। মুশফিক বিদায় নেওয়ার পরই নাইট ওয়াচম্যান নামিয়েছে বাংলাদেশ। ছয়টি বল খেলে অপরাজিত থেকে মাঠ ছেড়ে তাসকিন আগেই তাঁকে না নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে ওঠা প্রশ্নকে আরও বড় করে তুলেছেন।

টিকে থাকতে পারেননি মুশফিক

টিকে থাকতে পারেননি মুশফিক – ছবি: এএফপি

 

তাঁর সঙ্গী মাহমুদুল হাসানের কাঁধেই কাল ইনিংসটা টানার দায়িত্ব। জাতীয় দলে ওপেনার বনে যাওয়া এই তরুণ ১৪১ বল খেলে ৪৪ রানে অপরাজিত। ৪২ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়ে হারমারই বাংলাদেশের সর্বনাশ করেছেন।

 

এর আগে দ্বিতীয় দিনটা বাংলাদেশকে ভালো কিছুর স্বাদ দিচ্ছিল। দিনের খেলা শুরু হওয়ার ৩০ মিনিটের মধ্যেই জোড়া আঘাত বাংলাদেশের। খালেদ আহমেদের টানা দুই বলে বিদায় নিয়েছেন কাইল ভেরেইনা ও উইয়ান মুল্ডার। টেম্বা বাভুমা প্রতিরোধ গড়েছিলেন। কিন্তু মধ্যাহ্নবিরতির আগেই টানা দুই বলে সে প্রতিরোধও ভেস্তে গেছে। টেস্টে দ্বিতীয় শতকের অপেক্ষা দ্বিতীয় নব্বইয়ের আক্ষেপ হয়েছে বাভুমার (৯৩)। এরপরই বাংলাদেশের হতাশার পালার শুরু।

 

প্রথমে উইলিয়ামসকে নিয়ে ৩৪ রানের জুটি গড়লেন হারমার। এর পর অলিভিয়েরকে নিয়ে এনে দিয়েছেন আরও ৩৫ রান। দল ৩৬৭ রানে গুটিয়ে গেলেও ৩৮ রানে অপরাজিত ছিলেন হারমার। কিন্তু কে জানত, তখনো হাত মকশো করেছেন এই স্পিনার। তখন কে জানত, এ-ই শেষ নয়; বরং হারমারের বাংলাদেশকে হতাশা উপহার দেওয়ার মূল পর্বটা তখনো বাকি!

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

দক্ষিণ আফ্রিকা ১ম ইনিংস: ১২১ ওভারে ৩৬৭ (বাভুমা ৯৩, ভেরেইনা ২৮, হারমার ৩৮*; তাসকিন ২৩–৪–৬৯–০, এবাদত ২৯–১০–৮৬–২, খালেদ ২৫–৩–৯২–৪, মিরাজ ৪০–৮–৯৪–৩, মুমিনুল ৪–০–১৭–০।

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৪৯ ওভারে, ৪ উইকেটে ৯৮ (মাহমুদুল ৪৪*, সাদমান ৯, নাজমুল ৩৮, মুমিনুল ০, মুশফিক ৭, তাসকিন ০*; অলিভিয়ের ০/৯, উইলিয়ামস ০/১৫, হারমার ৪/৪২, মহারাজ ০/২৪, এলগার ০/৮)

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ