প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন ফাজিলে দেওবন্দ মাওলানা ফরীদ উদ্দিন আহমদ এর মৃত্যুবার্ষিকী আজ

প্রকাশিত: ৫:২৪ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১১, ২০২২

প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন ফাজিলে দেওবন্দ মাওলানা ফরীদ উদ্দিন আহমদ এর  মৃত্যুবার্ষিকী আজ

প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন ফাজিলে দেওবন্দ মাওলানা ফরীদ উদ্দিন আহমদ এর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ।

প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন ফাজিলে দেওবন্দ হযরত মাওলানা ফরীদ উদ্দিন আহমদ ( গোয়ালবাড়ীর হুজুর) এর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ ৯ রামাদ্বান। গত বছরের ৯ রামাদ্বান বৃহস্পতিবার ইফতারের কিছুক্ষণ আগে ইন্তেকাল করেন এই মুহাক্কীক আলেমে দ্বীন। পরদিন শুক্রবার বাদ জুমআ সিলেট নগরীর হযরত মানিকপীর গোরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়। প্রভাতবেলা প্রতিবেদক♦

হযরত মাওলানা ফরীদ উদ্দিন আহমদ ( গোয়ালবাড়ীর হুজুর) এর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আজ ৯ রামাদ্বান মরহুমের দ্বিতীয় ছেলে সাংবাদিক কবীর আহমদ সোহেল এর বাসায় বাদ আসর দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।এছাড়া মরহুমের মাগফেরাত কামনায় রমজান মাসব্যাপী পারিবারিক ভাবে বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করা হচ্ছে। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে স্বজন পরিজনদের পরিবারে ইফতার সামগ্রী দান, দু:স্থ অসহায়দের মধ্যে সাহায্য, মসজিদ ও এতিমখানায় দান ও খতমে কুরআন।

মাওলানা ফরীদ উদ্দিন আহমদ ( গোয়ালবাড়ীর হুজুর) এর সহপাঠী, সহকর্মী, ছাত্রছাত্রীসহ সকল মহলের কাছে পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁর আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া চেয়েছেন মরহুমের সন্তানরা।

মাওলানা ফরীদ উদ্দিন আহমদ ( গোয়ালবাড়ীর হুজুর) ছিলেন এক নিভৃতচারী মুহাক্কীক আলেমে দ্বীন। অত্যন্ত মেধাবী এই শিক্ষার্থী উপমহাদেশের দ্বীনি শিক্ষার বাতিঘর দারুল উলুম দেওবন্দ থেকে কৃতিত্বের সাথে উচ্চ শিক্ষা (ফারিক) অর্জন করেন।
এর আগে তিনি চট্রগ্রামের দারুল উলুম মইনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসা ও ঢাকার লালবাগ জামেয়া ইসলামিয়া মাদরাসা থেকে দাওরায়ে হাদিস ও দাওরায়ে তাফসীর সম্পন্ন করেন।

মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলার গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের এরালীগোল গ্রামে ১৯৩৬ সালে জন্মগ্রহণ করেন ফরীদ উদ্দিন আহমদ। গোয়ালবাড়ী হাফিজিয়া মাদরাসা ও দক্ষিণ গোয়ালবাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিক শিক্ষা শুরু করেন তিনি। পরবর্তীতে বড়লেখার বড়খলা বশিরিয়া আরবিয়া ইসলামিয়া মাদরাসায় ভর্তি হন। সেখান থেকে হাটহাজারী,লালবাগ ও দেওবন্দ মাদরাসায় শিক্ষাগ্রহণ শেষে বাড়ী ফেরেন তিনি।

কর্মজীবনে তিনি শিক্ষকতাকেই বেছে নেন। অযুত তালেবার প্রিয় উস্তাজ হিসেবে স্বীকৃত মাওলানা ফরীদ উদ্দিন আহমদ ( গোয়ালবাড়ীর হুজুর) ১৪ বছরেরও অধিক সময় সিলেটের জামেয়া ইসলামিয়া বাহরুল উলুম বালিঙ্গা,বিয়ানীবাজার এর মুহতামিম হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেন। শিক্ষকতা শুরু করেন যে মাদরাসা থেকে তাঁর মাদরাসা শিক্ষার প্রকৃত সূচনা হয় বড়লেখার সেই বড়খলা বশিরিয়া আরবিয়া ইসলামিয়া মাদরাসা, থেকে। পরবর্তীতে নয়াবাজার আহমদিয়া ফাজিল মাদরাসা জুড়ী, জামেয়া মাদানিয়া আঙ্গুরা মোহাম্মদপুর মাদরাসা, জামেয়া ক্বাসিমুল উলুম কাকরদিয়া মাদরাসা, জামেয়া ইসলামিয়া দারুল উলুম টেকাহালি মাদরাসা ও জামেয়া ইসলামিয়া গ্রামতলা বড়লেখায় শিক্ষকতা করেন।

তিনি জামেয়া ইসলামিয়া গ্রামতলা, বড়লেখার অন্যতম প্রতিষ্টাতা। এছাড়াও দ্বীনের দ্বায়ী হিসেবে দেশের বিভিন্ন স্থানে তিনি বয়ান, ওয়াজ-নসিহত করে গেছেন তাঁর জীবদ্দশায়।

ঈমান আক্বীদ্বা রক্ষা ও ইসলাম বিরোধী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে সোচ্চার এই আলেমে দ্বীন ছিলেন দক্ষিণ-পূর্ব সিলেটের অগ্রসৈনিক।

মরহুমের ৪ পুত্র সিলেট শহরেই বসবাস করছেন। বড়ছেলে জামিল আহমদ শামীম ব্যবসায়ী। দ্বিতীয় ছেলে কবীর আহমদ সোহেল ( দৈনিক প্রভাতবেলা সম্পাদক), তৃতীয় ছেলে আহমদ মারুফ ও চতূর্থ ছেলে মাসরুর রাসেল সকলেই সাংবাদিকতা পেশায় সম্পৃক্ত।

এরালীগোল গ্রামের মরহুম হাজী জহির আলী ও রুপজান বিবি তাঁর গর্বিত পিতামাতা।

 

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ