এই সেই হারুন!

প্রকাশিত: ৬:০৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১২, ২০২৩

এই সেই হারুন!
১৪ আগস্ট থেকে ১১ সেপ্টেম্বর। মাত্র ২৭ দিন। এ ২৭ দিনেই কৃতকর্মের প্রায়শ্চিত্ত পেয়ে গেলেন হারুন। হ্যাঁ, বলছি বরখাস্তকৃত পুলিশের এডিসি হারুনের কথা।
১৪ আগস্ট রাত ৮টা ৪০মিনিটে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী।

ঐ রাতে পিজির সামনে নিরস্ত্র মানুষের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেন তখনকার এডিসি হারুন।

এম্বুলেন্স নষ্ট হওয়ার পর আরেকটি এম্বুলেন্সে ্তুলতে গিয়ে মৃতদেহ ধরে নিয়ে যেভাবে ট্রাক থেকে আলুর বস্তা নামানোর মতো ঠেলা দিয়ে ধাক্কা দিয়ে লাশটা এ্যম্বুলেন্সে তুলেছিলেন

এডিসি হারুন(বরখাস্তকৃত)।

ঐদিন রাতে সাঈদী পুত্র মাসুদ সাঈদী যখন জনগণের সামনে বক্তব্য দেন তখন নিরাপত্তার কথা বলে তার সাথে সাথে থেকে মানসিক চাপ দিচ্ছিলেন হারুন। সে রাতে ওয়াকিটকি হাতে আপনাকে দাড়িয়ে থাকতে দেখেছে আপামর জনতা। সাদা কাগজে স্বাক্ষর করতে ছলেবলে কৌশলে বাধ্য করেছিলেন।

আরও পড়ুন  ‘ইস্টার সানডে’র খরচ যোগাতেই নানী-খালাকে খুন!

গভীর রাতে আপনি মানুষ সরিয়ে যেকোন মূল্যে লাশ নিয়ে যেতে খুব তৎপর ছিলেন এই পুলিশ কর্তা।

ঐসময় পুলিশের সাধারণ সদস্যরা আপনার অর্ডার শুনেনি বলে আপনি প্রকাশ্যে কাচা বাংলা ভাষায় গালাগালি করেছিলেন।

এক মাস পার হয় নি।  সব বাড়াবাড়ির পরিনাম ভাল হয় না। এসবের শাস্তি দুনিয়া এবং আখেরাতে সব জায়গায় ভোগ করতে হয়। কোন না কোন ভাবে আপনার উপর শাস্তি আসবেই। এসেছেও তাই। তবে মনে করবেননা এটিই শেষ। এগুলো মাত্র শুরু।

আমরা দুনিয়ায় কিছু ভয়ংকর শাস্তি দেখেছি।

আল্লাহ তোমাদের বুঝ দান করুন আর না ধ্বংস করে দিন।

ক্ষমতা শক্তি চেয়ার লাঠি বুলেট এগুলোর ধারাবাহিকতা বেশি দিন থাকেনা। একদিন হাসপাতালের বেডে শুয়ে দেখেন দুনিয়াটা কেমন।

মৃত্যুকে ভয় করুন আল্লাহকে ভয় করুন।

শুধু এডিসি হারুন নয় সীমা লংঘন কারীরা দুনিয়ায় চরম অপমান অপদস্ত এবং শারীরিক মানসিক শাস্তির মুখোমুখি হবে। সময় অনেক কিছু দেখাবে।

আরও পড়ুন  করোনা আপডেট ৭ জুলাই: এক দিনে ৫৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩০২৭

সাংবাদিক এনামুল হক এনাম, যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাংবাদিক

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

সর্বশেষ সংবাদ