জামায়াতের ব্যাপক ত্রাণ তৎপরতা || গণমাধ্যমের রহস্যজনক নীরবতা

প্রকাশিত: ৩:০৯ অপরাহ্ণ, জুন ২৩, ২০২২

জামায়াতের ব্যাপক ত্রাণ তৎপরতা || গণমাধ্যমের রহস্যজনক নীরবতা

জামায়াতের ব্যাপক ত্রাণ তৎপরতা || গণমাধ্যমের রহস্যজনক নীরবতা।

 

কবীর সোহেল,সিলেট♦

ব্যাপক ত্রাণ তৎপরতা চালাচ্ছে জামায়াত। জামায়াত প্রধান ডা.শফিকুর রহমান দূর্গত অঞ্চলে চষে বেড়াচ্ছেন। প্রত্যন্ত জনপদে বন্যাপীড়িত মানুষের কাছে গিয়ে দু:খ দুর্দশার চিত্র দেখছেন। দু’হাত খুলে ত্রাণ ফান্ড ঘোষণা করছেন। সিলেট সুনামগঞ্জ নেত্রকোনা কিশোরগঞ্জ থেকে কুড়িগ্রাম যেখানেই মানুষ বিপদে সেখানেই ছুটছেন ডা. শফিক। চারণ ত্রাতা হিসেবে ইতোমধ্যে নিজেকে প্রতিষ্টিত করে নিয়েছেন সিলেটের কৃতিসন্তান এই ব্যক্তিত্ব। খোলসের রাজনীতির বাইরে টেনে এনেছেন জামায়াতকে। নিয়ে চলেছেন মানুষের কাছাকাছি। সবার আগে মানুষ,দেশ তারপর দল রাজনীতি এ সত্যকে বাস্তবে রুপ দিয়ে চলেছেন জামায়াত আমীর ডা.শফিকুর রহমান।

 

বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলের প্রধানদের মধ্যে তিনিই প্রথম ব্যক্তি যিনি প্রত্যন্ত জনপদে প্রতিকূল আবহাওয়া উপেক্ষা করে মানুষের দ্বারে ত্রাণ নিয়ে পৌঁছেছেন। সিলেটে শত বছরের ইতিহাসের ভয়াবহতম বন্যার প্রথম লগ্নেই তিনি সিলেটে দূর্গত মানুষের কাছে পৌঁছেন।  ৫০ লক্ষ টাকার ত্রাণ ফান্ডের ঘোষণা দিয়ে তিনি চমকে দেন দেশবাসীকে। চরম প্রতিকূল স্রোতে বহমান জামায়াতের বুকের প্রশস্ত স্ফীত কতটুকু জানান দেন তিনি।

 

জামায়াতের এই ব্যাপক ত্রাণ তৎপরতা চলমান থাকলেও তা গণমাধ্যমে আসছে না। জামায়াতের মহত কাজ প্রচার ও প্রকাশে গণমাধ্যমের রহস্যজনক নীরবতা । গণমাধ্যমের এই একপেশে নীতি সাধারণ মানুষের চোখেও ধরা পড়ছে। অনেকেই সোস্যাল মিডিয়ায় গণমাধ্যমের এমন আচরণকে ‘হীন মানসিকতা’ বলছেন। অনেকে আবার উম্মা প্রকাশ করে বলছেন, ইসলাম বিরোধী কথিত চেতনাবাজ এসব মিডিয়া যে কোন ইসলামী  দলের ত্রাণ তৎপরতা প্রকাশ প্রচারে রহস্যজনক নীরব। কিন্তু কেন?

বন্যাপীড়িত মানুষের কাছে খাবার নিয়ে ছুটছেন ডা. শফিকুর রহমান।

বন্যাপীড়িত মানুষের কাছে খাবার নিয়ে ছুটছেন ডা. শফিকুর রহমান–                                                   ছবি প্রভাতবেলা।

 

সিলেট নগরীর ২৪ নং ওয়ার্ডে ত্রাণ বিতরণ পূর্ব এক বক্তব্য জাদুমন্ত্রের মত কাজ করে নেতাকর্মীদের মাঝে। এ বক্তব্য যেন হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালা। ডা. শফিক ত্রাণ প্রদানকালে সিলেটের আঞ্চলিক ভাষায় বলেন, “ ভালা অইতো যদি নিজোর খান্দো খরি নিয়া আফনারার ঘরো ফৌছাইয়া দেওয়া যাইতো”-। ( ভালো হতো যদি নিজের কাঁধে করে নিয়ে আপনাদের ঘরে পৌছিয়ে দেয়া যেত)। বক্তব্য আমীরের প্র্যাকটিস নেতাকর্মীর। শত শত নেতাকর্মী কাঁধে ত্রাণের বস্তা নিয়ে ছুটে চলেন কাঁদা জল মাড়িয়ে দুর থেকে বহুদুরে। সিলেট মহানগরী আমীর ফখরুল ইসলাম, সিলেট জেলা (উত্তর) সেক্রেটারী জয়নাল আবেদীন থেকে শুরু করে জেলা উপজেলার নেতৃবৃন্দ দলীয় প্রধানের আফসোসকে আনন্দে আমল করে চলেছেন। নেতা কেমনে কর্মীদের কর্মে উদ্বুদ্ধ করতে তার ক্যারিশমা দেখালেন ডা. শফিকুর রহমান। আর নেতার বক্তব্যই যে নির্দেশনা তা উপলব্ধি ও অনুশীলন কেমনে করতে হয় তার নাজরানা পেশ করে চলেছেন জামায়াত- শিবিরের নেতাকর্মী।

বন্যার প্রারম্ভিক লগ্ন থেকে শুরু জামায়াত মানুষের সাহায্যে অগ্রণী ভূমিকায়। সিলেট সিটি করপোরেশন ও তৎপার্শ্ববর্তী এলাকা, জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট, কোম্পানীগঞ্জ, কানাইঘাট, জকিগঞ্জ, বিয়ানীবাজার, ফেঞ্চুগঞ্জ, বালাগঞ্জ, বিশ্বনাথ, ও দক্ষিণসুরমা উপজেলার বন্যা উপদ্রুত অঞ্চলে ত্রাণ তৎপরতা চালাচ্ছে জামায়াত। কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল এহসানুল মাহবুব জুবায়েরকে সমন্বয়ক করে ত্রাণ কমিটি করে দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে জামায়াতের আমীর ছাড়াও কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমান, ঢাকা মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারী ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ ও ড. রেজাউল ইসলাম, আল্লামা সাঈদীপুত্র শামীম সাঈদীসহ প্রায় অর্ধশতাধিক কেন্দ্রীয় নেতা সিলেটে ত্রাণ কার্যক্রমে অংশ নিয়েছেন বলে দলীয় ‍সুত্র জানায়।

ত্রাণ বিতরণ শেষে সহমমির্মতা জানাচ্ছেন জামায়াত আমীর

ত্রাণ বিতরণ শেষে সহমমির্মতা জানাচ্ছেন জামায়াত আমীর-     ছবি প্রভাতবেলা।

সুত্রমতে, সিলেট মহানগরী ও সিলেট জেলায় গত ১৬ জুন থেকে ২২ জুন পর্যন্ত জামায়াত প্রায় ১ কোটি টাকার ত্রাণ বিতরণ করেছে। সিলেট জেলা ও মহানগর এলাাকার প্রায় ১ লাখ মানুষের কাছে জামায়াত ত্রাণ সহায়তা পৌঁছাতে পেরেছে। জামায়াত সুত্রমতে, তাদের প্রদত্ত ত্রাণ সহায়তা উপভোগী পরিবারের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

 

সিলেট মহানগরীর দূর্গত এলাকায় ২২জুন পর্যন্ত জামায়াত প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার ত্রাণ সামগ্রী প্রদান করেছে। ত্রাণ সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে বিস্কুট,চানাচুর, চিড়া,গুড়,মুড়ি,ব্রেড,চাল,ডাল, তেল, আলু, চিনি, মোমবাতি, লাইটার, দিয়াশলাই, বিশুদ্ধ পানি ও শিশু খাদ্য। মহানগরী এলাকায় প্রায় সাড়ে ৬ হাজার পরিবারের ৪২হাজার মানুষ জামায়াতের ত্রাণ সহায়তা পেয়েছেন।

 

বন্যায় সিলেটের মধ্যে সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত কোম্পানীগঞ্জ, গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর, কানাইঘাট ও জকিগঞ্জ উপজেলা। জামায়াতের সাংগঠনিক সিলেট জেলা উত্তর শাখা এটি। জৈন্তাপুর উপজেলার টানা দুইবারের চেয়ারম্যান ও জামায়াতের উত্তর জেলা সেক্রেটারী জয়নাল আবেদীন এই জেলার ত্রাণ কার্যক্রম সমন্বয় করছেন। প্রথম ও দ্বিতীয় দফা বন্যায় নিরন্তর সহযোগিতা করে যাচ্ছে তার নেতৃত্বে জামায়াতের প্রায় ২০ টি টিম। দ্বিতীয় দফা বন্যার পর জেলার দূর্গত এলাকা সফর করেন জামায়াত আমীর ডা. শফিকুর রহমান। জয়নাল আবেদীন প্রভাতবেলা’কে জানান, দ্বিতীয় দফা বন্যার পর প্রায় ১০ হাজার পরিবারের অন্তত ৫০ হাজার মানুষের কাছে আমরা ত্রাণ সহায়তা পৌঁছাতে পেরেছি। এসব ত্রাণ সামগ্রীর আর্থিক মূল্য অর্ধকোটি টাকার মত হবে। জেলা জামায়াতের আমীর হাফিজ আনোয়ার হোসাইন খান, উপাধ্যক্ষ সৈয়দ ফয়জুল্লাহ বাহারসহ জেলা ও উপজেলা জামায়াতের নেতৃবৃন্দ সার্বক্ষণিক ত্রাণ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। জানান জয়নাল আবেদীন।

সিলেট জেলা দক্ষিণ এ বন্যার ভয়াবহতা অপেক্ষাকৃত কম। সিলেট জেলা দক্ষিণ জেলা জামায়াতের আমীর অধ্যাপক আব্দুল হান্নান, নায়েবে আমীর দক্ষিণ সুরমা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মাওলানা লোকমান আহমদ এর নেতৃত্বে জামায়াত ত্রাণ তৎপরতা চালাচ্ছে। দলীয় সুত্র বলছে ইতোমধ্যে প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ২হাজার ৩শ ৫০ টি পরিবারের ৯ হাজার ৪ শত ৬৫ টি জন বন্যা দূর্গত মানুষ এই ত্রাণ সুবিধা ভোগ করেছেন।

জামায়াত

ত্রাণ বিতরণের প্রাক্কালে পীড়িত মানুষের উদ্যেশে বক্তব্য রাখছেন জামায়াত প্রধান- ছবি প্রভাতবেলা।

সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতির সাথে সাথে মৌলভীবাজার জেলায় নতুন করে বন্যা দেখা দেয়। সেখানেও তাৎক্ষণিকভাবে জামায়াত ত্রাণ তৎপরতায় নেমে পড়ে। গতকাল ২২ জুন পর্যন্ত মৌলভীবাজারের জুড়ী,বড়লেখা উপজেলাসহ বন্যা দূর্গত উপজেলায় প্রায় ৭ লক্ষ টাকার ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছে জামায়াত। জামায়াতের দলীয় সুত্র মতে, বড়লেখা ও জুড়ী উপজেলার বন্যা দূর্গত মানুষের জন্য বড়লেখা জামায়াত ৩০ লক্ষ ও জুড়ী জামায়াত ২০ লক্ষ টাকার ত্রাণ ফান্ডের ঘোষণা দিয়েছে।

 

একইভাবে সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জের বন্যা দূর্গত মানুষের মাঝে জামায়াত ব্যাপক ত্রাণ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।তবে জেলা দুটির ত্রাণ তৎপরতার বিস্তারিত পরিসংখ্যান প্রভাতবেলা’র কাছে এসে পৌছায়নি এখনো।

 

সিলেটে মহানগর জামায়াতের আমীর ও কেন্দ্রিয় কর্ম পরিষদ সদস্য মুহাম্মদ ফখরুল ইসলাম প্রভাতবেলাকে বলেন, জামায়াত তার সাধ্য অনুযায়ী সর্বোচ্চ ত্রাণ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। মানুষের এই বিপদের সময়ে সামর্থবান সকলকে দূর্গত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানান ফখরুল।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ