জাল কাগজপত্রে রেজিস্ট্রি, দলিল লিখক বরখাস্ত

প্রকাশিত: ৩:৫৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১১, ২০২০

জাল কাগজপত্রে রেজিস্ট্রি, দলিল লিখক বরখাস্ত

প্রতিনিধি, নবীগঞ্জ♦জাল কাগজপত্র দিয়ে দলিল রেজিষ্ট্রি করার অভিযোগে এক দলিল লিখককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বরখাস্তকৃত  মো. আব্দুন নূর হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার সাবরেজিষ্ট্রি অফিসের দলিল লিখক।

সুত্রে জানা গেছে- ওই উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউপির চেয়ারম্যান মোঃ বজলুর রশীদ সম্প্রতি এলাইছ মিয়া নামের এক ব্যক্তিকে দাতা সাজিয়ে মোঃ আব্দুল রেজ্জাক নামের এক ব্যক্তির রেকর্ডীয় ভূমি বরখাস্তকৃত দলিল লিখকের সহযোগিতায় নিজ নামে রেজিষ্ট্রি করে নেন। বিভিন্ন সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যে জানাযায়, উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ বজলুর রশীদ তার বাড়ির সামনে তারই চাচাতো ভাই মোঃ আব্দুল রেজ্জাকের পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত বর্তমান সেটেলমেন্ট জরিপেও রের্কডকৃত ৪ শতক ভুমি চলতি বছরের জানুয়ারী মাসে মৃত আব্দুস শহীদের পুত্র এলাইছ মিয়া নামের এক ব্যক্তিকে মোঃ আব্দুল রেজ্জাক সাজিয়ে বরখাস্তকৃত দলিল লিখক আব্দুন নূরের সহযোগিতায় নিজ নামে রেজিষ্ট্রি করে নেন। এ খবর পেয়ে মোঃ আব্দুল রেজ্জাক নবীগঞ্জ সাবরেজিষ্ট্রি অফিসে এসে সাবরেজিষ্ট্রারকে এর কারণ জানতে চাইলে হৈচৈ শুরু হয়। প্রাথমিকভাবে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করা হলেও পরবর্তীতে তা জানাজানি হয়ে গেলে নবীগঞ্জের সর্বত্র তোলপাড় শুরু হয়। পরবর্তীতে সাবরেজিষ্ট্রার নিরোধ বরণ বিশ্বাস গত ৫ আগষ্ট এই জালিয়াতির ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দলিল লিখক আব্দুন নূরকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেন।  একজন জনপ্রতিনিধির এ ধরনের জালিয়াতির ঘটনায় নবীগঞ্জে সর্বত্র তোলপাড় চলছে। এদিকে সংবাদটির ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে অভিযুক্ত দলিল লিখক আব্দুন নূরের বিরুদ্ধে অসংখ্য অনিয়ম ও জাল জালিয়াতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। ইতিপূর্বেও জাল দলিল সৃষ্টির অভিযোগে দলিল লিখক আব্দুন নূরকে বহিস্কার করা হয়েছিলো। এছাড়া তার বিরুদ্ধে জাল দলিল ও পর্সা দিয়ে নামে বেনামে বিভিন্ন ব্যাংক থেকে লোন নেয়ারও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  • 57
    Shares

সর্বশেষ সংবাদ